গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত ট্রাস্ট টেকনিক্যাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (টিটিটিআই)  সামরিক ও বেসামরিক নারী-পুরুষকে বিনা টিউশন ফি’তে প্রশিক্ষণ, ভাতা ও চাকুরির সংস্থান করে দিচ্ছে। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের অধিনে প্রতিষ্ঠানটি ২০০৯ ইং হতে এ পর্যন্ত ৩৫৮৫ জন সামরিক ও ৪৩৭০ জন বেসামরিক শিক্ষার্থীকে কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত করে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলেছে ।

বুধবার সকালে ১৬তম সেশনের কোর্স সম্পন্নকারীদের সনদ ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানানো হয়।  অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ তানভীর ইকবাল , এনডিসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি। এসময় ওই অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন  টিটিটিআইয়ের অধ্যক্ষ লে.কর্ণেল (অব:) আছয়াদুর রহমান খান পিএসসি।

অধ্যক্ষ আছয়াদুর রহমান খান জানান, ২০০৯ সালের ১জুন টিটিটিআই যাত্রা শুরুর পর থেকে  এ যাবত বিভিন্ন ট্রেড কোর্সে প্রায়  ৮ হাজার নর-নারীকে বিনা টিউশন ফি’তে প্রশিক্ষণ ও মাসিক ৭০০টাকা করে বৃত্তি দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের দেশ-বিদেশে চাকুরীর সংস্থানও করে দেয়া হয়েছে। অধ্যক্ষ আরো বলেন, বর্তমান সেশনে (জানুয়ারী-জুন ২০১৭)   সর্বমোট ১০১৮জন শিক্ষার্থী ৮টি বিভিন্ন ট্রেড কোর্স সম্পন্ন করেছেন। তাদের মধ্যে ৩১৪ জন সামরিক এবং ৭০৪ জন বেসামরিক ছাত্র-ছাত্রী ছিল। এছাড়া  ৩০ জন বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকুরি পেয়েছেন এবং আরো ২০০জনের চাকুরি প্রক্রিয়াধীণ রয়েছে। তিনি বলেন টিটিটিআই অর্থ নয় বরং দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে কারিগরি শিক্ষায় দক্ষতা বৃদ্ধি করে কর্মক্ষেত্রে আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কাজ করে যাচ্ছে।

প্রতিষ্ঠানটি বিশ্ব ব্যাংকের অনুদানে প্রতি সেশনে ৩০০ জন গরীব ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদেরকে বিনাবেতনে প্রশিক্ষন  প্রদান ও প্রতিজনকে প্রতিমাসে ৭০০ টাকা করে বৃত্তি প্রদান করে থাকে।

এছাড়াও  এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট  (এডিপি)-এর আওতায় স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের মাধ্যমে ৩০০ জন প্রশিক্ষণার্থীকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। যাদের প্রতিজনকে মাসে ৩হাজার ১২০টাকা করে বৃত্তি দেয়া হয় এবং সফল প্রশিক্ষণ শেষে সকলের চাকুরির ব্যবস্থা করা হবে।

গত বছর এ প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ৫০জন কাতারে চাকুরি পেয়েছে। বর্তমানে কুয়েত, সৌদি ও মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানীর প্রক্রিয়া চলছে।

 

Share Button