নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর শাহবাগের পরীবাগ এলাকার একটি বহুতল আবাসিক ভবনের সাততলা থেকে পড়ে গুরুতর আহত হয়েছেন এক গৃহকর্মী। তাঁকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাত ১১টার দিকে গৃহকর্মী রহিমা আক্তার বেবিকে (৩০) ঢামেকে নিয়ে আসা হয়। খবর পেয়ে ছুটে আসেন তাঁর ছোট ভাই শুকুর আলী। তাদের বাড়ি ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার আধাখোলা গ্রামে। তাদের বাবার রাম বাবুল হাওলাদার। হাসপাতালে শুকুর আলী জানান, পরীবাগ মাজার সংলগ্ন ১৬তলা দিগন্ত অ্যাপার্টমেন্টের সাততলায় সালেহ আহমদের বাসায় গত ১৫/১৬ দিন ধরে কাজ করছিলেন বেবি। বেবির দুটি সন্তান আছে। স্বামীর সঙ্গে তাঁর বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। বেবির ভাই অভিযোগ করেন, তাঁর বোনকে মারধর করে গৃহকর্তা সাততলার পিছনের বারান্দা দিয়ে নিচে ফেলে দেয়। হত্যার জন্যই তাঁকে ফেলে দেওয়া হয়েছে। শুকুর আলী আরো অভিযোগ করেন, সালেহ আহমদের বাসায় কাজ নেওয়ার পর থেকেই তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ ছিল। গৃহকর্তা চাইতেন না কেউ বেবির সঙ্গে যোগাযোগ করুক। সেদিন থেকে বেবির ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ ছিল। তবে এ ব্যাপারে গৃহকর্তা সালেহ আহমদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান জানান, পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Share Button