সাহারুল হক সাচ্চু, উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ-সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নিজস্ব মিক্সিং মেশিন নেই। এ মেশিন না থাকায় তিনটি জাতীয় মহাসড়কের ৮৩ কিলোমিটার সড়ক পথ সময় মত সঠিক ভাবে সংস্কার ও রক্ষনাবেক্ষন করা সম্ভব হচ্ছে না। সওজ বিভাগ মান্ধাতা পদ্ধতিতে বছরের পর বছর ধরে সড়ক গুলোর সংস্কার কাজ করে আসছে। মাত্র ৮ লাখ টাকা দামের মেশিনটির অভাবে বাড়তি অর্থ ব্যয় হচ্ছে। এদিকে উল্লাপাড়ার সওজ বিভাগের প্রয়োজনীয় সংখ্যক নিজস্ব শ্রমিক নেই। উল্লাপাড়ার সওজ বিভাগের অধিনে তিনটি জাতীয় মহাসড়ক রয়েছে। এ মহাসড়ক তিনটি হলো এন-৫ নগরবাড়ি-বগুড়া মহাসড়ক, এন-৪০৫ এলেংগা-নলকা হাটিকুমরুল ও এন-৫০৭ হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়ক। এর মধ্যে নগরবাড়ি মহাসড়কের টুকুবাধ থেকে চান্দাইকোনা পর্যন্ত ৫২ কিলোমিটার, এলেংগা মহাসড়কের নলকা থেকে হাটিকুমরুল ৫ কিলোমিটার ও বনপাড়া মহাসড়কের ২৬ কিলোমিটার মিলে মোট ৯৩ কিলোমিটার উল্লাপাড়া সওজ বিভাগের অধিনে আছে। উল্লাপাড়া সওজ বিভাগ থেকে মহাসড়ক তিনটির ৯৩ কিলোমিটার সড়ক পথ সংস্কার সহ যাবতীয় রক্ষনাবেক্ষনের কাজ করা হয়ে থাকে। উল্লাপাড়ার সওজ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী কে.এম. জহুরুল আলম জানান, তার বিভাগে হট মিক্স প্লান্টের কোন মিক্সিং মেশিন নেই। অতি প্রয়োজনীয় হলেও অজ্ঞাত কারণে আজও এ মেশিন সরবরাহ করা হয়নি। মহাসড়ক গুলো সংস্কার ও রক্ষনাবেক্ষনের কাজ মান্ধাতা পদ্ধিতিতেই করা হচ্ছে। এতে করে যথা সময়ে ও দ্রুত সংস্কারের দরকার হলেও তা সম্ভব হয় না। তিনি আরোও জানান, আমাদের দেশে যশোরে তৈরি এ মেশিনের দাম সবোর্চ্চ ৭ লাখ এবং ভারতে তৈরি এ মেশিনের দাম সবোর্চ্চ ১০ লাখ টাকা। তিনি জোর দিয়ে বলেন, এ মেশিন থাকলে মহাসড়ক গুলো যখন যেখানে সংস্কার করা দরকার দেখা দিবে, অতিদ্রুত তা করা যাবে। অপরদিকে উল্লাপাড়া সওজ বিভাগের নিজস্ব প্রয়োজনীয় সংখ্যক শ্রমিক সংকট অনেকদিন থেকেই রয়েছে। এ বিভাগে মাত্র তিন থেকে চারজন শ্রমিক রয়েছে। এতে করে এ শ্রমিক সংকটের কারণে সংস্কার সহ বিভিন্ন রক্ষনাবেক্ষনের কাজ দ্রুত করা সম্ভব হয় না।

Share Button