সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, আগামী সংসদ নির্বাচনে জোট নয়, জাতীয় পার্টি এককভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। এ জন্য ৩০০ আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের প্রসঙ্গ উঠলে এরশাদ বলেন, এ নিয়ে আগেও কিছু বলিনি, এখনও কোনো মন্তব্য করব না। এর আগে এরশাদ নীলফামারীর সৈয়দপুরে বন্যাদুর্গতদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেন। আর সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের পর ইউনিয়ন ব্যাংক রংপুর শাখার উদ্বোধন করেন তিনি।

বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কে এরশাদ বলেন, সরকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে পারেনি। ত্রাণ তৎপরতা অপ্রতুল। তবে জাতীয় পার্টি বানভাসি মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছে। সাধ্যমতো ত্রাণ দেয়ার চেষ্টা করছে। রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ কোনো প্রার্থী দেবে না বলে আশা প্রকাশ করেন এরশাদ। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী দিলেও জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বিপুল ভোটে জয়ী হবে। ইউনিয়ন ব্যাংক রংপুর শাখার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন এরশাদ। সেখানে তিনি বলেন, রংপুরের উন্নয়নের দায়িত্ব বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নিজেই নিয়েছেন। সেই উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে রংপুরের পুত্রবধূ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবশ্যই রংপুর অঞ্চলে পাইপলাইনের মাধ্যমে গ্যাস আনবেন। ইতিমধ্যে তিনি সব রকম উদ্যোগ নিয়েছেন। বর্তমান সরকারের আমলে রংপুরের উন্নয়ন প্রসঙ্গে সাবেক এ রাষ্ট্রপতি বলেন, অনেক বাধা ছিল, এখন তা কেটে যাচ্ছে। রংপুরের মানুষের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারলে এ অঞ্চলে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা কমে যাবে। তিনি বলেন, রংপুরের মানুষ অলস নয়, তারা কাজ করে জীবনের উন্নয়ন ঘটাতে পারবে।

ইউনিয়ন ব্যাংককে রংপুরের মানুষের পারিবারিক ব্যাংক উল্লেখ করে এরশাদ এ ব্যাংকের সমৃদ্ধিতে সবাইকে সহযোগিতা করার আহবান জানান। ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওমর ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ ছালেহ, সনিক প্রাইম গ্রুপের চেয়ারম্যান প্রফেসর আক্কাছ আলী সরকার, রংপুর চেম্বারের সাবেক প্রেসিডেন্ট আবুল কাশেম, বর্তমান ভাইস প্রেসিডেন্ট মঞ্জুর আহমেদ আজাদ এবং উইমেন চেম্বারের পরিচালক জাকিয়া আহসান।

দুপুরে এরশাদ রংপুর সার্কিট হাউসে পৌঁছলে দলের নেতাকর্মীরা তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। এ সময় রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসির আহাম্মেদ প্রমুখ সেখানে ছিলেন। পরে পুলিশের একটি চৌকস দল এরশাদকে গার্ড অব অনার দেয়।

সৈয়দপুরে ত্রাণ বিতরণ : সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি জানান, একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের বিমানে সকালে ঢাকা থেকে সৈয়দপুরে আসেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সেখান থেকে তিনি কামারপুকুর কলেজ মাঠে আসেন। সেখানে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। প্রতি প্যাকেটে ছিল একটি করে শাড়ি ও লুঙ্গি, এক কেজি মসুর ডাল ও পাঁচ কেজি চাল। পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ও নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য শওকত চৌধুরীও এ সময় বক্তব্য দেন। এরশাদ বলেন, ১৯৮৮ সালের বন্যায় বুকভরা পানিতে নেমে আমি দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছুটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছিলাম। আজও আপনাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছি। কিন্তু বর্তমান সরকার তেমনভাবে বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ায়নি। তিনি বলেন, মানুষ এখন একই দলকে দীর্ঘদিন ক্ষমতায় দেখতে চায় না। ক্ষয়িষ্ণু দল বিএনপিকেও ক্ষমতায় দেখতে চায় না তারা। তাই আসন্ন নির্বাচনে জাতীয় পার্টির দিকে তাকিয়ে আছে দেশের জনগণ। এছাড়া কোনো উপায় নেই।

Share Button