দুঃস্বপ্নের এক সফর শেষে আজ সকাল আটটায় দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ দল। সফরটা শেষ হওয়ায় হয়তো ‘স্বস্তি’র নিশ্বাসই ফেলছেন খেলোয়াড়েরা! দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রতিটি ম্যাচে বড় ব্যবধানের হারের লজ্জা থেকে তো আপাতত মুক্তি! কিন্তু একটা বাজে সফর হিসেবে এটি ভুলে গেলেই কি সমাধান হয়ে যাবে? ভুল থেকে সবাই শেখে। তা দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে বাংলাদেশ কী শিখল?

সাকিবের বিশ্লেষণে উঠে এসেছিল লড়াইয়ের মানসিকতার অভাবের কথা। পরাজয়ের বৃত্তে আটকা থাকাটাকে সাকিব বলেছেন ‘ভাইরাস’, যেটি ছড়িয়েছে এক ম্যাচ থেকে আরেক ম্যাচে। হাবিবুল বাশার ভুল চিহ্নিত করেছেন বেশ কয়েকটি। তবে এও মনে করিয়ে দিচ্ছেন, এই একটা সফরের বাজে ফলাফলের কারণে পুরো বাংলাদেশ দল খারাপ হয়ে গেছে, তা যেন মনে করা না হয়।

সাবেক বাংলাদেশ অধিনায়ক ও বর্তমানে নির্বাচক হাবিবুল বলেছেন, ‘আমি নিজেও কারণটা খুঁজছি, এতটা খারাপ কেন হলো? ব্যাটিংয়ে টপ অর্ডার ভালো করেনি, মিডল অর্ডার ভালো করেনি। বোলাররা ভালো করতে পারেনি। আমরা কোনো বিভাগেই ভালো করতে পারিনি। ভুল এতটাই নির্দিষ্টভাবে বলার উপায় নেই যে এ বিভাগটা আমাদের উন্নতি করতে হবে। যা খেলেছি, সেটা আমাদের ক্রিকেট নয়। এর চেয়ে ভালো খেলার সামর্থ্য আমাদের আছে এবং আগে আরও ভালো খেলেছি। একটা সিরিজ দিয়ে বলতে পারব না যে সামনে পারব না বা খারাপ দল হয়ে গেছি আমরা।’

দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ওয়ানডে সিরিজে ধবলধোলাইয়ের পর মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেছেন, বাংলাদেশের জন্য বড় ‘সতর্কবার্তা’ হয়ে থাকল এই সফরটা, ‘ভুলগুলো ঠিক না করলে সামনের সিরিজ-টুর্নামেন্ট ভালো করা কঠিন হয়ে যাবে। আমার কাছে মনে হয়, এই যে সময়টা গেল, এটা বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য সতর্কবার্তা। এখান থেকে খেলোয়াড়দের অবশ্যই শিক্ষা নিতে হবে।’

ভুল শুধু দুঃসময়েই নয়, দল যখন ভালো করে, তখনো হয়। কিন্তু সেগুলো ঢাকা পড়ে যায় সাফল্যের আড়ালে। টানা ব্যর্থতায় এবার স্পষ্ট হয়ে উঠেছে, খামতি থেকে যাচ্ছে কোথায় কোথায়। বাংলাদেশ দল এবার ভালোভাবেই উপলব্ধি করেছে, খারাপ সময় কাকে বলে, কত প্রকার, কী কী!

হাবিবুল মনে করেন, এই ক্রান্তিকাল থেকে উত্তরণের উপায় বের করতে পারাটাই হবে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের সবচেয়ে বড় শিক্ষা, ‘খারাপ সময় কী করতে হয়, এই সময়ে কী ভুল হয়—এটা জানাই হচ্ছে মূল শিক্ষা। সব সময়ই তো আপনার ভালো সময় যাবে না। যখন খারাপ সময় যায়, তখন আমরা কী করি, কী সমস্যার মধ্যে পড়ি সেটা উপলব্ধি করাই হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ। যখন ভালো করি তখন অনেক সমস্যা আড়ালেই থাকে। কিন্তু খারাপ সময়ে সেটি প্রকাশ পায় প্রকটভাবে। ভুল করেছে বলেই তো বাংলাদেশ ব্যর্থ হয়েছে। এই কঠিন সময় থেকে বেরিয়ে আসতে হলে সেটির উপায় বের করার ভাবনাটাই হচ্ছে শিক্ষা। সামনে অনেক সিরিজ-টুর্নামেন্ট খেলবে বাংলাদেশ। আবেগ নয়, যুক্তি দিয়ে ভাবতে হবে আমাদের। আশা করি, দক্ষিণ আফ্রিকার ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনে আবার ভালো খেলবে বাংলাদেশ।’

Share Button