স্পেন সরকার কর্তৃক বহিষ্কৃত কাতালান নেতা কার্লেস পুজদেমন ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া আঞ্চলিক পার্লামেন্ট নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কিনা তা এখন তার জেলে থাকা না থাকার ওপর নির্ভর করছে। স্পেনের কেন্দ্রীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলফোনসো দাসতিস সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, যদি পুজদেমন জেলে বন্দি না থাকেন তবেই কেবল তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। অবশ্য এরইমধ্যে পুজদেমনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দাযেরের প্রস্তুতি নিছে স্পেন সরকার।
মাদ্রিদের কেন্দ্রীয় সরকারের মুখপাত্র ইনিগো মেন্দেজ দে ভিগোকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, স্পেন সরকার মনে করে,বহিষ্কার করা হলেও রাজনীতি চালিয়ে যাওয়ার অধিকার পুজদেমনের আছে। এর একদিন পর দেশটির পররাষ্টমন্ত্রী বলছেন, পুজদেমন নির্বাচন করতে পারবেন ঠিকই, তবে জেলে থাকলে তিনি সেই সুযোগ পাবেন না। স্প্যানিশ ঐক্যকে সমর্থন জানিয়ে কাতালোনিয়ার বার্সেলোনায় আয়োজিত সমাবেশে এসব কথা বলেন আলফানসো।
শুক্রবার কাতালোনিয়ায় স্বাধীনতা ঘোষণা করার পক্ষে আঞ্চলিক পার্লামেন্টের রায় আসে। এর পর পরই স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাজোয় কাতালোনিয়ার আঞ্চলিক সংসদ ভেঙে দেওয়ার ঘোষণা দেন এবং কাতালান নেতা পুজদেমনকে বরখাস্ত করেন। একই সঙ্গে ডিসেম্বরে আগাম আঞ্চলিক নির্বাচনেরও ঘোষণা দেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী। এরইমধ্যে কাতালোনিয়ার প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে মাদ্রিদ সরকার। স্প্যানিশ আইন লঙ্ঘন করার দায়ে পুজদেমন ও অন্য কাতালান কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি নিছে স্পেনের প্রধান প্রসিকিউটর। তবে পুজদেমন বলেছেন তাকে ক্ষমতা থেকে অপসারণের যে নির্দেশ মাদ্রিদ সরকার দিয়েছে তা তিনি মানেন না। স্পেনের কেন্দ্রীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলফোনসো দাসতিস স্কাই নিউজকে বলেন, ‘আমরা কাতালোনিয়ার কাছ থেকে স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নিছি না। প্রকৃতপক্ষে আমরা এটি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করছি কেবল।’
স্বাধীনতা ঘোষণার পর সোমবারই কাতালোনিয়ার প্রথম কর্মদিবস। তাই এদিনই বোঝা যাবে অঞ্চলটিতে আসলে কেন্দ্রীয় শাসন জারি হয়েছে কি হয়নি।

Share Button