চার দিনের সফর শেষে ঢাকার উদ্দেশে চট্রগ্রাম ছেড়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আজ মঙ্গলবার দুপুর ২টার পর চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ ত্যাগ করেন তিনি। সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে পৌঁছেছিলেন। সেখানেই রাত্রিযাপন করেন খালেদা জিয়া। খালেদা জিয়ার সঙ্গে রয়েছে বিশাল গাড়িবহর। তার সফরসঙ্গী হিসেবে আছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। এর আগে সোমবার উখিয়াতে তিনটি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ত্রাণ বিতরণ করেছেন খালেদা জিয়া। এছাড়া একটি মেডিকেল ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। বেগম জিয়া চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে উপস্থিত নেতাকর্মীদের রাজনৈতিক নির্দেশনা প্রদান করেন।
গত শনিবার সকালে রোহিঙ্গাদের ক্যাম্প পরিদর্শন এবং তাদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণের জন্য বেগম খালেদা জিয়া ঢাকা ছাড়েন। সেদিন তার বহরে ফেনীর ফতেপুর, মহিপালের লালপুর এবং কুমিল্লার ইলিয়টগঞ্জসহ বিভন্নস্থানে লাঠিসোটা ও ইট পাটকেল ছুড়ে হামলা হয়। সাংবাদিকের ছয়টিসহ অন্তত: ৩০টি গাড়ি হামলার শিকার হয়। সাত সাংবাদিকসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন।
খালেদা জিয়ার এই সফরে পথে পথে অভাবনীয় শোডাউন করেছেন নেতাকর্মীরা। আসন্ন নির্বাচনে প্রার্থী হতে ইচ্ছুক নেতাদের জনসমর্থন-লোকবল প্রদর্শনের প্রতিযোগিতা হয়েছে। ব্যানার ফেস্টুন প্লাকার্ডে ছেয়ে ছিল মহাসড়কের দুই ধার।
দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি গ্রামের সাধারণ নারী-পুরুষও খালেদা জিয়াকে দেখার জন্য রাস্তার পাশে দাঁড়িয়েছে। যেনো নির্বাচনী প্রচারণার মহড়া। তবে খালেদা জিয়ার এই সফর সম্পূর্ণ মানবিক হওয়ার কারণে তিনি রাজনৈতিক বক্তব্য এড়িয়ে গেছেন।
Share Button