প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত পরিমাণে চর্বি বা মেদ শরীরে জমাকেই স্থূলতা বা মুটিয়ে যাওয়া বলে। স্থূলতা বর্তমান সময়ে একটি প্রচলিত সমস্যা। একে বিভিন্ন রোগের কেন্দ্রবিন্দু বলা হয়। বিভিন্ন ধরনের হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, কোলেস্টেরল বেড়ে যাওয়া সহ নানা সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে স্থূলতা থেকে। তবে ওজন বেড়ে যাওয়া আর স্থূলতা এক জিনিস নয়। সাধারণত প্রতিটি মানুষের নারী-পুরুষ ভেদে উচ্চতা অনুযায়ী একটি নির্দিষ্ট ওজন থাকা স্বাস্থ্যসম্মত ও প্রয়োজন।
এটিকে বলা হয় বডি মাস ইনডেক্স। বিএমআই মানে উচ্চতা ও ওজনের একটি পরিমাপ গণনা। বডি মাস ইনডেক্স বা বিএমআই দিয়ে সহজেই বুঝতে পারা যায়, একজন মানুষের কতটুকু ওজন থাকা দরকার। একটি মানুষের বিএমআই ২৪ দশমিক ৯ থাকা স্বাভাবিক। যখন এটি থেকে বেশি হয়ে যায় যেমন ২৯ হয় তখন বাড়তি ওজন বলা হয়। কিন্তু যখন ২৯ এর উপর থাকে তখনই বলা হয় স্থূলতা। ৩৪ এর উপর হয়ে গেলে বলা হয় জটিল স্থূলতা। এই স্থূলতা বা জটিল স্থূলতাই হয়ে দাঁড়ায় বিভিন্ন রোগের কারণ।
বিভিন্ন কারণে মানুষের শরীর মেদবহুল হয়ে উঠে। যেমন- অধিক ক্যালরি গ্রহণ, উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার যেমন, চকলেট, বার্গার, কোমল পানীয়, আইসক্রিম ইত্যাদি খাবার অধিক পরিমাণে গ্রহণ, খেলাধুলা এবং শারীরিক ব্যায়ামের অভাব. হরমোন জনিত সমস্যা ও পারিবারিক ও বংশগত কারণ।
উন্নত দেশের মতো বাংলাদেশেও স্থূলতার হার বাড়ছে প্রতিনিয়ত। গবেষণায় দেখা গেছে, বাংলাদেশে ২০১৬ সালে ছেলেদের মধ্যে স্থূলতার হার ছিল ৩ শতাংশ আর মেয়েদের মধ্যে ২ দশমিক ৩ শতাংশ। যা ১৯৭৫ সালে ছিল মাত্র ০ দশমিক ০৩ শতাংশ। ডব্লিউএইচও-এর অসংক্রামক রোগ পর্যবেক্ষণ ও প্রতিরোধ বিষয়ক সমন্বয়ক ডা. ফিওনা বুল বলেন, কম পুষ্টিকর ও বেশি ক্যালরি সমৃদ্ধ খাবার, সস্তা ও প্রক্রিয়াজাত খাবার উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ কমিয়ে আনতে সরকাকে উদ্যোগী হতে হবে।
Share Button