আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন ভয়েস ফর বাংলাদেশ কর্তৃক আয়োজিত ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ২৮তম আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র, বিচারব্যবস্থা ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্মেলন হাউস অব লর্ডসের প্রভাবশালী সদস্য লর্ড ক্রিস্টপার জন রেনান্ড এমবিই-এর সভাপতিত্বে ও ভয়েস ফর বাংলাদেশের ফাউন্ডার আতাউল্লাহ ফারুকের পরিচালনায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসাইন, মানবাধিকার বিষয়ে মূল প্রতিপাদ্য উপস্থাপন করেন এমনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সাবেক দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান আব্বাস ফায়েজ, বিশেষ অতিথি ছিলেন লর্ড এন্ড্রিও স্টার্নেল ওবিই, লর্ড আহমদ, লর্ড হোসাইন, আফজাল খান এমপি, কেবিন ব্রিননান এমপি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট সদস্য ব্যারিস্টার নাসির উদ্দিন আহমদ অসিম, কমনওয়েলথ সেক্রেটারিয়েট প্রতিনিধি, ইউরোপীয়ান কমিশন প্রতিনিধি, হিউম্যান রাইটস ওয়াস প্রতিনিধি প্রমুখ।
প্রধান আলোচক খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে একটি অগণতান্ত্রিক রাষ্ট্র, বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ পরাধীন, সীমাহীন মানবাধিকা লঙ্গিত হচ্ছে, খুন, অপহরণ, ক্রসফায়ার, রাজনৈতিক হয়রানি একটা নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। মানুষ কথা বলতে পারে না, স্বাধীন সাংবাদিকতা সমূলে ধ্বংসের পথে। ইতিমধ্যেই আপনারা জেনেছেন প্রধান বিচারপতি অস্টেলিয়ায় গেছেন। বিভিন্ন তথ্যমতে প্রধান বিচারপতিকে জোরপূর্বক ছুটি নিতে বাধ্য করা হয়েছে, এতে সরকারের দুর্বলতা সুস্পষ্ট হয়েছে। কারণ ১৫৩ জন অনির্বাচিত এমপির বিষয়ে আপিল বিভাগে শুনানিতে যেন প্রধান বিচারপতি উপস্থিত না হতে পারেন। মূলত বিচার ব্যবস্থা যাতে সরকারের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে থাকে সেই কারণে প্রধান বিচারপতির এই রহস্যজনক ছুটি! আমরা আইনজীবী হাজার চেষ্টা করেও প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারিনি।
লর্ড এড্রিও স্টার্নেল বলেন, সব দলের আলোচনার ভিত্তিতে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনই দিতে পারে সব সমস্যার সমাধান। তিনি বলেন, এভাবে কোনো বিচারপতিকে ছুটিতে পাঠানো দুঃখজনক।
আফজাল খান এমপি বলেন- সরকারকে মানুষের জন্য কাজ করতে হবে এটাই নিয়ম, কিন্তু ক্রস ফায়ার, গুম, খুন ও বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড অগ্রহণযোগ্য। বিচার বিভাগকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিতে হবে। যেন সবাই সঠিক বিচার পায়। নির্বাচনে নিরপেক্ষ পর্যবেক্ষক ও আন্তর্জাতিক মানের নির্বাচন জরুরি।
এম আবদুর রহিম, লন্ডন থেকে

Share Button