তথ্যপ্রতিমন্ত্রী এডভোকেট তারানা হালিম বলেছেন, নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনে মালিকদের স্বার্থ দেখা হবে না। ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের স্বার্থ গুরুত্ব পাবে।
আজ বুধবার সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন তিনি।মন্ত্রণালয়ের আগামী দিনের কর্মপরিকল্পনার কথা সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরতে এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।
তারানা হালিম বলেন, ওয়েজ বোর্ড গঠনের ফাইলটি বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। এটি বাস্তবায়নে ১৩ সদস্যের একটি কমিটি গঠনের প্রস্তাবসহ ফাইলটি প্রধানমন্ত্রীর দফতরে আমরা পাঠিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী এ ফাইলে সই করলেই কমিটি অনুমোদন পাবে। তখন ওয়েজ বোর্ড ঘোষণায় আর সময় লাগবে না। আমরা আশা করছি, খুব শিগগিরই নবম ওয়েজ বোর্ডের বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে।
টেলিভিশন সাংবাদিকদের বেতন বৈষম্য দূরীকরণে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এজন্য আমরা মাঠে নিয়োজিত সাংবাদিকদের সঙ্গে বসতে চাই। তাদের কথা বিস্তারিত শুনে তা নিয়ে মালিকদের সঙ্গে বসে সাংবাদিকদের বেতন বৈষম্য দূরীকরণে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে চাই।
বাংলাদেশের উন্নয়ন এবং সম্ভাবনা নিয়ে জেলা উপজেলা এবং বিদেশের বিভিন্ন মিশনে প্রচারের জন্য ‘ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ’ নামে একটি প্রচারণায় নামার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রথম স্লোগানটি হবে ‘ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ’। এ স্লোগান নিয়ে বিদেশে যে মিশনগুলো আছে, যেই দেশে শ্রমিক যাচ্ছে সেই দেশের অর্থনীতিতে বাংলাদেশের শ্রমিকদের অবদান কী, কোন কোন সেক্টরে কত শ্রমিক কাজ করছে। আমাদের অর্থনীতিতে সেই শ্রমিকদের অবদান কী এসব নিয়ে প্রচার করা হবে।
প্রচারণার জন্য চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদফতরকে (ডিএফপি) ইতোমধ্যেই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন জেলা, উপজেলায় আমাদের প্রজেক্টর আছে। তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুদানে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র, স্বল্প দৈর্ঘ চলচ্চিত্র এবং চলচ্চিত্র জেলা-উপজেলায় দেখানোর ব্যবস্থা করবো, যেখানে জনসমাগম হয় হাট-বাজার সেগুলোতে। এর পাশাপাশি বর্তমান সরকারের সাফল্য এবং বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিং প্রচার করবো। বাসস
Share Button