আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। ক্ষমতা চিরদিন থাকে না। বিলবোর্ডে ছবি দিলে নেতা হওয়া যায় না। জনগণকে খুশি করেন। যার আচরণে জনগণ খুশি হবে, তিনিই নেতা হবেন। ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করেন। বাসায় বসে থেকে সদস্য সংগ্রহ অভিযান করবেন না। সুযোগ পেলে শীতের অতিথি পাখিরা নৌকায় ভিড়বে, সুযোগ শেষে আবার চলে যাবে। তাই এদের থেকে সাবধান থাকুন। চিহ্নিত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কেউ যেন আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না। এ বিষয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের সজাগ থাকার তাগিদ দেন তিনি।
বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে লালমনিরহাট জেলা পরিষদ অডিটরিয়াম মাঠে কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রতিটা মানুষের হাতে মোবাইল ফোন পৌঁছে দিয়েছে সরকার। দেশের মানুষ আজ শান্তিতে রয়েছে। মঙ্গা শব্দটি এখন জাদুঘরে রয়েছে। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাধ্যমে বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী, মাতৃত্ব ও মুক্তিযোদ্ধা ভাতার ব্যবস্থা করা হয়েছে। নারীদের ঘরে রেখে উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই শেখ হাসিনার সরকার তাদের মর্যাদা বৃদ্ধি করেছেন। নারীরা আজ সচিব, ডিসি, এসপি হয়েছেন। তাই আগামী নির্বাচনে নারীরাই প্রধান হাতিয়ার বলে মন্তব্য করেন তিনি।
বিএনপিকে নালিম পার্টি উল্লে­খ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, বেগম জিয়া ঈদের আগে আন্দোলনের ডাক দেন আর আন্দোলনকে ভ্যানিটি ব্যাগে ভরে লন্ডনে চলে যান।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লালমনিরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য মোতাহার হোসেনের সভাপতিত্বে কর্মী সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সংসদ সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সংসদ সদস্য বিএম মোজাম্মেল হক, সংসদ সদস্য খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ও লালমনিরহাট-২ (আদিতমারী-কালীগঞ্জ) সাংসদ নুরুজ্জামান আহমেদ, লালমনিরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আবু সাঈদ দুলাল, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মতিয়ার রহমান, সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সফুরা বেগম রুমী প্রমুখ।
Share Button