কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার মাতোয়ারকান্দা গ্রামের হারিছ মিয়াকে হত্যার দায়ে ৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ এবং প্রত্যেককে দশ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো তিন মাস সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জের তৃতীয় আদালতের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মুহ. আবু তাহের এই রায় প্রদান করেন।
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- একই গ্রামের আবু সিদ্দিক, আবু বাক্কার, মতি, ওয়াহাব, আউয়াল, মোহররম, ইসমাইল, মোস্তফা ও রুস্তম আলী। তন্মধ্যে আবু সিদ্দিক ও রুস্তম আলী পলাতক রয়েছেন। সাক্ষ্য-প্রমাণের অভাবে ইব্রাহিমকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। মামলার বিচার চলাকালীন সময়ে অভিযুক্ত তিন আসামি মারা যান। এই ঘটনায় কুলিয়ারচর থানায় মামলা দায়েরের পর সিআইডি তদন্তশেষে মোট ১৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে।
মামলার বিবরণে প্রকাশ, ১৯৯৬ সালের ২৪ অক্টোবর সকাল নয়টায় হারিছ মিয়া কুলিয়ারচর বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিজ গ্রামের বজলু মিয়ার বাড়ির সামনে আসা মাত্র আসামিরা দা’সহ দেশিয় অস্ত্র নিয়ে তার হামলা চালায়। হারিছ মিয়াকে গুরুতর অবস্থায় প্রথমে কুলিয়ারচর হাসপাতালে এবং পরে বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরদিন তিনি মারা যান। ঘটনার আগের দিন হারিছ মিয়া জমি সংক্রান্ত বিরোধের ঘটনায় আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন।
সরকার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এপিপি দিলীপ কুমার ঘোষ এবং আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট গিয়াসউদ্দিন।
Share Button