ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি॥
ঢাকার ধামরাইয়ে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে বসতবাড়ী জোর পৃর্বক দক্ষলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।এই সময় বাড়ীর মালিক মারফত আলী ও পরিবারের লোকজন তাদের বাধা দিতে গেলে প্রতিপক্ষরা লোহার রড ও লাঠিসোটা নিয়ে প্রায় ১৫ জন ভাড়াটে যুবক বসতবাড়ী দখলের জন্য তাদের উপর হামলা চালীয়ে আহত করে চলে যায়।এই সময় ঘরবাড়ী ভেঙে তছনছ করে ফেলে। ঘরের চালের টিন গুলি বাড়ী পাশে পানির ডোবার মধ্যে ফেলে দেয়। ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের আশেপাশের লোকজন তাদের বাধা দিতে গেলে ভাড়াটা যুবকরা তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে  হামলা চালায়। এই সময় স্থানীয়রা মুমৃর্ষ অবস্থায় মোঃ মারফত আলী ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।
আজ শনিবার (১৪জুলাই) দুপুর ৩ঘটিকার সময় উপজেলা সানোড়া ইউনিয়নের বার্নিশ^র  গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।
ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা জানায়, উপজেলা সানোড়া ইউনিয়নের বানেশ^র গ্রামের(১) মোহাম্মদ আলী, (২)মোঃ রতন,(৩)মোঃ আলমগীর হোসেন ও তার সহযোগিরা ভাড়াটে বাহীনি নিয়ে আজ শনিবার দুপুরে মোঃ মারফত আলীর বসতবাড়ী জবরদখল করতে য়ায়।এই সময় আমরা বাধা দিতে গেলে আমাদের সবায়কে পিটিয়ে আহত করে এবং ঘরের ভিতরে ঢুকে আলমারী ভেঙে নগদ টাকাসহ স্বর্ণ অলংকার নিয়ে যায়।
এই ব্যাপারে বানেশ^র গ্রামের মাতাব্বর মোঃ জুম্মত আলী বলেন, আজ সকালে  আমরা গ্রামের লোকজন নিয়ে পাশের বাড়ীতে বিচারে বসছিলাম। এই সময় উভয় পক্ষের কাগজ পত্র দেখে বুঝে উঠার আগেই মোহাম্মদ আলীর লোকেরা বলে এই জায়গা আমাদের আমরা এই বিচার মানি না বলে বিচার থেকে উঠে ঘর থেকে লাঠিবের করে এলোপাথারী ভাবে মারফত আলীর পরিবারের লোকের উপর মারতে থাকে এই সময় আমি থামাতে গেলে আমাকে ও মারতে আসলে আমি দৌড়িয়ে পালিয়ে যায়।
এই ব্যাপারে মাতাব্বর মোঃ ছবুর উদ্দিন বলেন, ১৯৮২সালের একটি দলিলের মাধ্যমে জমি মোহাম্মদ আলী গংরা দাবী করে কিন্তু মারফত আলী বলে আমি ১৯৮২ সালে কোন জমি বিক্রি করি নাই। এর পর দলিল দেখে বুঝা যায় যে মারফত আলী ১৯৭৯সালে একটি জায়গা ও ১৯৬৮ সালে আরেকটি দলিলে জমি বিক্রি করছে সেখানে দেখা যায় মারফত আলী দলিলে স্বাক্ষর করে জমি বিক্রি করেছে এই দেখে বুঝাযায় যে মারফত আলী জমি বিক্রি করে নাই। আমরা গ্রামের গণ্যমান্য লোকদের কথা না শুনে হঠাত করে লাঠি দিয়ে মারফতের লোকজনকে মারতে মারতে আহত করে। আমরা ফেরাতে গেলে আমাদেরকে মারার হুমকি দেয়।
এই ব্যাপারে ঐ গ্রামের আরেক মাতাব্বর মোঃ হাসান আলী বলেন,এই বাড়ী নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ভেজাল চলে আসছিল। সেই ভেজাল মেঠাতে গিয়ে আজ মোহাম্মদ আলীরা না বুঝে মারফত আলীকে মেরে বাড়ী দখল করার জন্য ঘর ভেঙে টিন গুলি ডোবায় ফেলে দিলু।

Share Button