নদী আমাদের প্রাণ, তাই এটি রক্ষার কোনো বিকল্প নেই জানিয়ে নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, নদী দূষণরোধে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে হবে। এর জন্য নদীর পাড়ে মানববন্ধন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যেতে পারে।
একই সঙ্গে নদী দখলকারী যত বড়ই ক্ষমতাশালী হোক না কেন, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ডিসিদের নির্দেশ দিয়েছেন নৌ পরিবহনমন্ত্রী।
আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ের মন্ত্রিসভার সভাকক্ষে জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের তৃতীয় ও শেষ দিনের প্রথম অধিবেশনে যোগ দিয়ে তিনি এই নির্দেশ প্রদান করনে। অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নৌমন্ত্রী এসব কথা জানান। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব শফিউল আলম অধিবেশনে সভাপত্বি করেন।
শাজাহান খান বলেন, সরকারের চাইতে বড় প্রভাবশালী কেউ না। আমরাই তো সরকারে। এর চেয়ে বড় প্রভাবশালী আর কেউ থাকতে পারে না। একটি অসাধু চক্র নদী থেকে বালু তুলে নদীর পাড় ভেঙে ফেলেছে। এদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিতে হবে।
শাজাহান খান বলেন, বিএনপি নেতৃত্বাধীন চার দলীয় জোট সরকার দেশের নদীগুলো ধ্বংস করে ফেলেছে। সেগুলো পুনঃখননের কাজ চলছে। নদীর তীর দখল করে যে অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠেছে, সেগুলো উচ্ছেদ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে দেড় হাজার কিলোমিটার নৌপথ খনন করা হয়েছে বলেও জানান নৌমন্ত্রী। বাসস
Share Button