ধামরাই(ঢাকা) প্রতিনিধি॥
ঢাকার ধামরাইয়ে সোয়াপুর ইউনিয়নের সোয়াপুর গ্রামে দুই মাদক বিক্রেতা ১৩০ পিচ ইয়াবাসহ এলাকাবাসি ধরে পুলিশে দেওয়ায় মাদক নির্মুল কমিটির সাধারণ সম্পাদক বর্তমান মেম্বারকে দিনদুপুরে বাজারের মধ্যে বেধরক মারপিট করে আহত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ শনিবার(২৯সেপ্টেম্বর) দুপুর ২ঘটিকার সময় ধামরাই উপজেলার ফুলতলা  বাজারে আর্নিছের দোকানে এই ঘটনাটি ঘটে। এই ব্যাপারে ভোক্তভুগি ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ নুরুল ইসলাম বলেন, আমি সুয়াপুর ইউনিয়নের মাদক নির্মুল কমিটির সাধারণ সম্পাদক। আমি সুয়াপুর এলাকায় মাদক নির্মুল করার জন্য জনগণকে সচেতন করি এবং যে কোন ধরণের মাদক সেবন ও বিক্রেতাকে ধরে পুলিশে সোর্পদ করার জন্য সকলকে বলি। সেই সুবাদে গত কাল ১৩০পিচ ইয়াবাসহ  মোঃ রিপন ও সবুজকে ইয়াবা বিক্রিকালে জনতা হাতে নাতে ধরে পুলিশকে খবর দেয়।পরে পুলিশ এসে তাদেরকে থানায় নিয়ে যায়। সেই কারণে আজ বেলা দুই ঘটিকার সময় আমি বাজারে একটি চায়ের দোকানে বসে থাকা অবস্থায় পাঁচজন লোক এসে আমার উপরে অর্তকিত হামলা চালায়(১) মোঃ সমেজুদ্দিন, (২) মোঃ সেন্টুমিয়া,(৩)কুটুমিয়া,(৪) মোঃ সেলিম (৫) মোঃ ফরিদ, তখন আমি ডাকচিৎকার করলে বাজারের লোকজন এগিয়ে আসলে তারা দৌড়িয়ে পালিয়ে যায় আর বলে তকে জানে মেরে ফেলব।পরে দোকান মালিক মোঃ আর্নিস আমাকে উদ্ধার করে মেডিকেলে ভর্তি করে।
এই ব্যাপারে ধামরাই থানার আফিসার ইনর্চাজ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন,আমার কাছে মাদককের কোন ছাড় নয় এবং তিনি আর বলেন মাদককের সাথে কোন আপস নয়।আমরা এই ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

Share Button