চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি॥
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার রানীহাটি ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর ফুটানীপাড়া গ্রামে মায়ের সাথে নানা জিয়াউর রহমান ফেন্সির বাড়িতে বেড়াতে এসে নৃশংসভাবে খুন হওয়া ৭ বছরের শিশু কন্যা মাশরুফা হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার নানা ফেন্সি’র  প্রতিবেশী আব্দুল খালেক (৪২) আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দিয়েছেন। রোববার (৩০সেস্টেম্বর) দুপুরে জুডশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট তিনি ১৬৪ ধারায় প্রদত্ত জবানবন্দীতে ওই শিশুর নানীর উপর রাগ করে শিশুটির মুখে বস্তা চাপা দিয়ে তাকে একাই হত্যা করে লাশ বস্তায় করে লুকিয়ে রেখে পরে রাতে ফেন্সির বাড়ির পাশে ফেলে দেবার কথা জানান।
গত ২৪ সেস্টেম্বর সোমবার সকালে নানা বাড়ি থেকে নিখোঁজের পরদিন ২৫ সেস্টেম্বর  মঙ্গলবার সকালে নানা জিয়াউর রহমান ফেন্সির বাড়ির পাশ থেকেই দেহের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন থাকা মাসরুফার লাশ উদ্ধার হয়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২৭সেপ্টেম্বর) ফেন্সির প্রতিবেশী মৃত.ওসমান আলীর ছেলে আব্দুল খালেককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওই দিনই তাঁর ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। নিহত মাশরুফা ঘটনাস্থলের ২ কি.মি দূরের শিবগঞ্জ উপজেলার নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক লাভাঙ্গা গ্রামের আব্দুল্লাহ’র মেয়ে। এ ঘটনায় ওই দিনই সদর থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে হত্যা মামলা করেন আবদুল্লাহ।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর রহমান বলেন, শিশু মাশরুফার নানা ফেন্সি’র পরিবারের সাথে তুচ্ছ কিছু ঘটনা নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরে শিশুটিকে লোমহর্ষকভাবে অত্যাচার করে খুন করা হয় বলে খালেক স্বীকার করেছেন। তাঁকে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Share Button