জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, ফিলিস্তিন প্রশ্নে নিরাপত্তা পরিষদ কেবলমাত্র দর্শকের ভূমিকায় থাকতে পারে না। তিনি বলেন, ‘ওআইসি সতর্ক করে দিতে চায়, এ ক্ষেত্রে চলমান রাজনৈতিক অচলাবস্থা মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়’।
মাসুদ বিন মোমেন ওআইসির সভাপতি হিসেবে বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) নিউইয়র্কে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ‘ফিলিস্তিনসহ মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি’ শীর্ষক এক উন্মুক্ত আলোচনায় বক্তৃতাকালে এ কথা বলেন। আজ শুক্রবার ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।
এতে বলা হয়েছে, ‘সম্মিলিত আন্তর্জাতিক পদক্ষেপ গ্রহণের ক্ষেত্রে ফিলিস্তিন প্রশ্ন হতে পারে একটি লিটমাস পরীক্ষা’- এ কথা উল্লেখ করে ওই উন্মুক্ত আলোচনায় রাষ্ট্রদূত বলেন, ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধান আন্তর্জাতিক আইন, আন্তর্জাতিক ব্যবস্থা এবং ন্যায়বিচার ও শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রতি মানুষের আস্থা ফিরিয়ে আনতে সহায়ক হবে।
তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘের রেজুলেশনসমূহ, মাদ্রিদ নীতি এবং আরব শান্তি প্রক্রিয়াসহ আন্তর্জাতিকভাবে ঐকমত্যে পৌঁছানো বিচার্য বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে ফিলিস্তিন সমস্যার সমাধান করতে হবে।’
মাসুদ বিন মোমেন উল্লেখ করেন, ‘অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমে ইসরাইলের ঔপনিবেশিক নীতির বিষয়ে ওআইসি বার-বার আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে যাচ্ছে। ইসরাইলের এ ঔপনিবেশিক আগ্রাসণ পূর্ব জেরুজালেমের জনমিতিক গঠন, অবস্থান ও চেহারা এমনভাবে পাল্টে দিয়েছে যে, এরফলে এই ভূখণ্ড সাবলীল ফিলিস্তিনি পরিবেশ থেকে একেবারেই আলাদা হয়ে গেছে। ঠিক এমনিভাবেই অনবরত ইসরাইলি পুলিশের নেতিবাচক আচরণের মাধ্যমে অপমানিত করা হচ্ছে পবিত্র আল আকসা মসজিদকে-যা সৃষ্টি করছে ভয়ঙ্কর উত্তেজনা।’
তিনি বলেন, ‘সহিংসতা ও বেসামরিক নাগরিকদের হতাহতের ঘটনা বেদনাদায়কভাবে বেড়েই চলেছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চোখের সামনেই হত্যা করা হচ্ছে শিশু ও শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদকারীদের।’
রাষ্ট্রদূত মাসুদ এ পরিস্থিতিতে ইসরাইলি অবরোধ সরিয়ে দেওয়ার পদক্ষেপ গ্রহণ এবং দায়িত্বশীলতার সাথে সংকটের সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আহ্বান জানান।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ চলতি মেয়াদে ওআইসির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছে। বাসস।
Share Button