তিন ম্যাচ টি-২০ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-২০ ম্যাচে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২৭ রানে হারিয়েছে সফরকারী পাকিস্তান। সিরিজের আগের দুই ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে সিরিজ নিশ্চিত করে দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে বুধবার দিবাগত রাতের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ জেতায় শেষ পর্যন্ত হোয়াইটওয়াশ এড়াতে সক্ষম হলো পাকিস্তান।

দক্ষিণ আফ্রিকার সেঞ্চুরিয়নে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাটিংয়ে নেমে পাকিস্তানের টপ-অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের কেউই বড় কোনো ইনিংস খেলতে পারেননি। ইনিংসের ১২ ওভার শেষে ৫ উইকেটের বিনিময়ে পাকিস্তানের সিংগ্রহ দাঁড়ায় ৯৪ রানে। ব্যাট হাতে বাবর আজম ২৩, ফখর জামান ১৭, মোহাম্মদ রিজওয়ান ২৬, অধিনায়ক শোয়েব মালিক ১৮, হুসেন তালাত ৩ রান করে সাজঘরে ফিরেন। এরপর আসিফ আলির ২৫, ইমাদ ওয়াসিমের ১৯ ও শাদাব খানের ৮ বলে অপরাজিত ২২ রানের টর্নেডো ইনিংসে ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১৬৮ রানে ইনিংস শেষ করে পাকিস্তান। নয় নম্বরে নামা শাদাব হাঁকান তিনটি ওভার-বাউণ্ডারি। দক্ষিণ আফ্রিকার ব্রুইন হেনড্রিকস ১৪ রানে ৪ উইকেট নেন।

১৬৯ রানের জয়ের লক্ষ্যে শুরুতেই বিপদে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৩০ রান করতেই তিন উইকেট হারিয়ে বসে প্রোটিয়ারা। একই ধারাবাহকতায় ৮০ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে লড়াই থেকে ছিটকে পড়ে তারা। ভ্যান ডান ডুসেনের ৩৫ বলে ৪১ রান ছিলো টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ইনিংস সর্বোচ্চ।

আরও পড়ুন: স্ত্রীর পরকীয়ার কারণে স্বামীর আত্মহত্যা

দলের ওপেনার থেকে টপ-অর্ডার ও মিডল-অর্ডারের সবাই একে একে ব্যর্থ হলেও সাত নম্বরে নেমে দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলেন ক্রিস মরিস। ৫টি চার ও ৩টি ছক্কায় মাত্র ২৯ বলে ৫৫ রান করেন তিনি। তার ঝড়ো ইনিংসে ভর করেই বড় ব্যবধানে হারের মুখ থেকে রক্ষা পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটের বিনিময়ে ১৪১ রানে শেষ হয় দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস।

পাকিস্তানের মোহাম্মদ আমির তুমে নেন তিনটি উইকেট। ম্যাচ সেরা হয়েছেন পাকিস্তানের শাদাব খান, সিরিজ সেরা দক্ষিণ আফ্রিকার ডেভিড মিলার। এই টি-২০ লড়াইয়ের আগে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ৩-০, পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ৩-২ ব্যবধানে জিতেছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা।

Share Button