করোনাভাইরাসের প্রতীকী ছবি

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় (আজ মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনাভাইরাসে সংক্রমিত আরও ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনায় সংক্রমিত ১ হাজার ৫৩৭ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে।

এ নিয়ে দেশে মোট নিশ্চিত আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ লাখ ৮১ হাজার ২৭৫। এর মধ্যে মোট ৫ হাজার ৫৭৭ জন মারা গেছেন। সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৭৩ জন।

দেশে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে আজ মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়

 বিজ্ঞপ্তির তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ১৩ হাজার ৮১৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১১ দশমিক ১৩ শতাংশ। আগের দিনও এই হার একই ছিল।

আগের দিনের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। তবে মৃত্যু কমেছে।

গতকাল করোনায় সংক্রমিত ৩১ জনের মৃত্যুর তথ্য জানানো হয়েছিল।

গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্তের তথ্য জানানো হয়। এর ১০ দিনের মাথায় ১৮ মার্চ করোনায় দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে সরকার।

শুরুর দিকে দেশে সংক্রমণ হয়েছে ধীরগতিতে। মে মাসের মাঝামাঝি সংক্রমণ দ্রুত ছড়াতে শুরু করে। আর জুনে সংক্রমণ পরিস্থিতি তীব্র আকার ধারণ করে।

 মাস দুয়েক ধরে দৈনিক নতুন রোগীর সংখ্যা কমেছে। এ সময়ে করোনা পরীক্ষাও আগের চেয়ে কম হচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, টিকা না আসা পর্যন্ত নতুন এই ভাইরাস প্রতিরোধের অন্যতম উপায় হলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

স্বাস্থ্যবিধির মধ্যে আছে বাইরে বের হলে মাস্ক পরা, কিছু সময় পরপর সাবান–পানি দিয়ে হাত ধোয়া বা স্যানিটাইজার ব্যবহার করা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা এবং লোকসমাগম এড়িয়ে চলা। এই সব কটি একসঙ্গে মেনে চলতে হবে।

স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে শিথিলতা বাড়লে সংক্রমণ আবার যেকোনো সময় বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে।

Share Button