প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় শ্যালিকাকে (২৩) ধর্ষণের অভিযোগে দুলাভাইকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি উপজেলার মাধবকাটি গ্রামের বাসিন্দা। ঘটনা জানার সঙ্গে সঙ্গে গতকাল সোমবার রাতে উপজেলার একটি গ্রাম থেকে তাঁকে (৩৮) গ্রেপ্তার করা হয়।

এরপর ধর্ষণের শিকার তরুণী বাদী হয়ে তাঁর ভগ্নিপতিকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মঙ্গলবার থানায় ধর্ষণের মামলা করেন। এরপর সোলাইমানকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

 ধর্ষণের শিকার তরুণী জানান, তাঁর দুলাভাই সোমবার বিকেলে তাঁদের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। সন্ধ্যার পর তাঁর স্বামী বাইরে যান। রাত ৯টার দিকে তিনি ঘরে কাজ করছিলেন। এ সময় দুলাভাই তাঁর ঘরে ঢুকে মুখ চেপে ধর্ষণ করেন। ধস্তাধস্তিতে একপর্যায়ে দুলাভাইয়ের কাছ থেকে তিনি মুক্ত হয়ে চিৎকার দেন। এ সময় আশপাশের লোক এসে দুলাভাইকে আটক করে সদর থানায় খবর দেন।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বোরহানউদ্দিন জানান, স্থানীয় ব্যক্তিদের কাছ থেকে খবর পেয়ে সোমবার রাতেই ঘটনাস্থল থেকে ওই তরুণীর ভগ্নিপতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে তরুণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিকেও আজ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Share Button