শনিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির রজত জয়ন্তী উপলক্ষে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীতে পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম।

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু বাঙালির অফুরন্ত ভালোবাসায় বারবার নিজের জীবন বাজি ধরছেন এবং শেষ পর্যন্ত জীবন দিয়ে প্রমাণ করেছেন বাঙালি ও বাংলাদেশের স্বার্থের ব্যাপারে তিনি কারও সঙ্গে আপস করবেন না। তাই বাংলাদেশ আর শেখ মুজিব দুটি সমার্থক শব্দ। একটি বাদ দিলে অন্যটির অস্তিত্ব থাকে না। মাত্র নয় মাসের যুদ্ধে দখলদার বাহিনীকে সম্পূর্ণ পরাজিত করে স্বাধীনতা অর্জনের ইতিহাস বিশ্বে বিরল, যেটা আমরা করেছি ১৯৭১ সালে। তাই বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে কখনো আপোষ করবেন না। কারণ, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ এক এবং অভিন্ন।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির রজত জয়ন্তী উপলক্ষে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীতে ডিআরইউ সমাপনী ও ২৫ বছরের নেতৃত্বকারী ব্যক্তিদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সাবেক সভাপতি মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ডিআরইউ’র সাবেক সভাপতি শাহজাহান সরদার, সাইফুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম সাবু, বর্তমান সভাপতি রফিকুল ইসলাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিব রহমান প্রমুখ।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু না হলে বাংলাদেশ হতো না। বঙ্গবন্ধু ও বাঙালির মুক্তিযুদ্ধ, এটি হলো আমাদের অহংকার। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে তাঁর আদর্শকে হত্যা করা যায় না। এখন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে।

উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন, গণমাধ্যম হচ্ছে সমাজের দর্পণ। সাংবাদিকতাটা যেন নিরপেক্ষ, বাস্তবমুখী, দেশ ও জাতির প্রতি কর্তব্যবোধ থেকে হয়। সাংবাদিকরা দেশ ও জাতির কল্যাণে সর্বদা কাজ করে যাচ্ছে। করোনাকালে সাংবাদিকরা ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে। এ কারণে তাদের উৎসাহিত করতে প্রণোদনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আপনারা (সাংবাদিকরা) নানা মতাদর্শের হতে পারেন, তবে বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে কখনো আপোষ করবেন না।

Share Button