জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল।

ধর্ষণের মিথ্যা মামলা করার দায়ে বাদী লিলিফা বানুকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ‘আসামি’কে মামলা থেকে অব্যাহতির আদেশ দেওয়া হয়।

 সোমবার বিকালে জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ রুস্তম আলী এ রায় দেন।কারাদণ্ডের পাশাপাশি ওই নারীকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত লিলিফা বানু জয়পুরহাট সদর উপজেলার সুন্দরপুর গ্রামের শাহজান আলীর মেয়ে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৯ সালের ২২ জুন জয়পুরহাট সদর উপজেলার সুন্দরপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে লিলিফা বানু রাতে একা রুমে শুয়ে পড়েন। একই গ্রামের রুহুল আমিন রাতে কৌশলে ঘরের দরজা খুলে ভিতরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করে।

পরদিন লিলিফা বানু জয়পুরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করলে বিচারক পুলিশকে মামলার তদন্ত করার নির্দেশ দেন।

তদন্তে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রুহুল আমিনকে শাস্তি দিতেই এমন মিথ্যা মামলা করা হয়।

রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট নৃপেন্দ্রনাথ মণ্ডল পিপি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

Share Button