ডিবি পুলিশের হেফাজতে আদালতে মজনু।

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রীকে ধর্ষণ মামলার আসামি মজনুর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। মামলার ২৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ২০ জনের সাক্ষ্য শেষ হয়েছে।

 বৃহস্পতিবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক বেগম কামরুন্নাহারের আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তাসহ তিন পুলিশ সদস্য সাক্ষ্য দেন। এরপর রাষ্ট্রপক্ষ মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ সমাপ্ত করেন। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ১২ নভেম্বর দিন ধার্য করেছে আদালত।

প্রসঙ্গত, গত ৫ জানুয়ারি ঢাবির নিজস্ব বাসে রওনা দেন ওই ছাত্রী। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডে বাস থেকে নামেন। এরপর তার মুখ চেপে ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণের পাশাপাশি তাকে নির্যাতন করা হয়। পরের দিন সকালে ওই ছাত্রীর বাবা অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন। এর আগে ৮ জানুয়ারি মজনুকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ৯ জানুয়ারি সাত দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পুলিশকে অনুমতি দেয় আদালত। ১৬ জানুয়ারি ঘটনার দায় স্বীকার করে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় মজনু।

১৬ মার্চ ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে মজনুর বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক আবু বক্কর। ২৬ আগস্ট ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক বেগম কামরুন্নাহার ভার্চুয়াল আদালতে মজনুর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। বর্তমানে মজনু কারাগারে আছে।

Share Button