বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর [ফাইল ছবি]

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশে আজকের যে সংকট, সেই সংকট আওয়ামী লীগ সৃষ্টি করেছে। তারা মানুষের ভোটের অধিকারটা পর্যন্ত কেড়ে নিয়েছে। আপনারা দেখবেন দ্রব্যমূল্য আকাশচুম্বী হয়ে গেছে। প্রতিটি পণ্যের দাম চার গুণ, পাঁচ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। লুটপাটের জন্য তারা সিন্ডিকেট তৈরি করেছে এবং সেই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে জনগণের টাকা লুটপাট করা হচ্ছে। তাই এ থেকে মুক্তিলাভের জন্য আমাদের যে গণতান্ত্রিক আন্দোলন অব্যাহত আছে, সেটাকে তীব্র থেকে তীব্রতর রূপে নিয়ে গিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ঘটাতে হবে।

 গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামের স্মরণে আয়োজিত এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ফখরুল বলেন আরো বলেন, আমাদের নেতাকর্মীদের গুম করা হয়েছে, হত্যা করা হয়েছে। তার পরও বিএনপি থেকে একটি লোককেও কেড়ে নিতে পারেনি। এই যে বিএনপির এই জায়গায় আসা, এটার পেছনে তরিকুল ইসলাম সাহেবের অবদান অকল্পনীয়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে এবং সহপ্রচার সম্পাদক কৃষিবিদ শামীমুর রহমান শামীমের সঞ্চালনায় সভায় স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মসিউর রহমান, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল ও হাবিব-উন-নবী খান সোহেল প্রমুখ বক্তব্য দেন।

ফখরুল বলেন, ‘আমাদের মূল যে চেতনা ছিল, গণতান্ত্রিক চেতনা, তা পুরোপুরি ধ্বংস করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার। খালেদা জিয়া বাইরে থাকলে নির্বাচনের পূর্বে আপনারা যেটা করেছেন, সেটা করতে পারতেন না এবং নির্বাচন-পরবর্তী সময়ে যে আন্দোলন-সংগ্রাম হতো, তাতে আপনারা টিকে থাকতে পারতেন না। সরকার আজকে ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে মামলা করেছে, প্রায় ১ লাখ মামলা।’

Share Button