বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ছবি: সংগৃহীত

নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরেই একের পর এক সুখবর পাচ্ছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। গেলো সপ্তাহে আইসিসি ওয়ানডে অলরাউন্ডার র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে ফিরেছেন তিনি। এবার টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়েও জায়গা করে নিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকা।

 আইসিসির প্রকাশিত ওয়ানডে অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থান পেলেও স্বল্প দৈর্ঘ্যের ফরমেট টি-টোয়েন্টিতে দ্বিতীয় স্থানে নেমেছেন সাকিব। আইসিসি প্রকাশিত টি টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে ২৬৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে অবস্থান তার। এই তালিকায় শীর্ষে আফগানিস্তানের অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবী। তার রেটিং পয়েন্ট ২৯৪।

টি-টোয়েন্টিতে ২৯৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে আছেন আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী। অন্যদিকে সাকিবের রেটিং ২৬৮। নিষেধাজ্ঞার আগে সাকিবের রেটিং পয়েন্ট ছিল ৩৫৫। নিষেধাজ্ঞার এক বছরে সাকিবের ৮৭ রেটিং পয়েন্ট কেটেছে আইসিসি।

এর আগে আইসিসির প্রকাশিত ওয়ানডে অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ে ৩৭৩ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে চূড়ায় উঠেছেন তিনি। সাকিবের ফিরে আসাকে যা করেছে আরো রঙিন। আনন্দের মাত্রাকে করেছে দ্বিগুণ।

এছাড়া এক বছর পর মাঠে ফিরেই ফিটনেস পরীক্ষাতেও বাজিমাত করছেন সাকিব। ছাপিয়ে গেছেন সবাইকে। সর্বোচ্চ স্কোর গড়ে ফিটনেস পরীক্ষার বৈতরণী পার হয়েছেন এই বিশ্বসেরা ওয়ানডে অলরাউন্ডার।

নিষেধাজ্ঞার কারণে এক বছর আগে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি সব রকম র‍্যাঙ্কিং থেকে সরিয়ে ফেলেছিলো সাকিবের নাম। নিষেধাজ্ঞা শেষে আবারো নিজের স্বরূপে ফিরেছেন সাকিব। এখন অপেক্ষা শুধু মাঠের নামার।

এদিকে তালিকার তৃতীয় স্থানে থাকা অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের পয়েন্ট ২২০। চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছেন স্কটল্যান্ডের রিচার্ড বেরিংটন। তার পয়েন্ট সংখ্যা ১৯৪। পঞ্চম স্থানে আছেন শেন উইলিয়মস। জিম্বাবুয়ের অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডারের পয়েন্ট ১৯০। তালিকা দশম স্থানে ওমানের জিশান মাকসুদের সঙ্গে যৌথভাবে রয়েছেন বাংলাদেশের মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। দুইজনের পয়েন্টই ১৩৫।

Share Button