কাজী নজরুল ইসলামকে নিয়ে নির্মিত ডকুফিল্ম ‘বায়োগ্রাফি অব নজরুল’ ছবিঃ সংগৃহীত

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামকে নিয়ে নির্মিত ডকুফিল্ম ‘বায়োগ্রাফি অব নজরুল’ মুক্তি পাচ্ছে আগামী ২০ নভেম্বর। যমুনা ফিউচার পার্কের ব্লকবাস্টার সিনেমাসে ওইদিন সন্ধ্যা ৬টায় অনুষ্ঠিত হবে প্রিমিয়ার শো।

 আমন্ত্রিত অতিথিও সাংবাদিকদের পাশাপাশি সাধারণ দর্শনার্থীরা টিকেট কেটেও তখন শো-টি উপভোগ করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন প্রামাণ্যচিত্রটির পরিচালক ফেরদৌস খান।

তিনি আরো জানান, এক সপ্তাহব্যাপী প্রতিদিন সন্ধ্যায় একটি শো ব্লকবাস্টার সিনেমাসে চলবে এমন কথা হচ্ছে।

ডকুফিল্ম ‘বায়োগ্রাফি অব নজরুল’ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সার্টিফিকেট পেয়েছে গত ২৯ জুলাই। তারপর গত আগস্টের শেষে অনলাইন আয়োজনের মাধ্যমে ডকুফিল্মটির ৪ মিনিটের একটি ট্রেইলার উন্মুক্ত করা হয় সবার জন্য, যা সর্বজন প্রশংসিত হয়।

ঢাকার নজরুল সেন্টারের ব্যানারে রতনদ্বীপ রিসোর্ট নিবেদিত ফেরদৌস খান পরিচালিত ১ ঘন্টা ৩৪ মিনিট ১২ সেকেন্ড ব্যপ্তিকালের এই তথ্যচিত্রটি প্রযোজনা করেছেন আল আমীন খান, সার্বিক কাজের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন কবি নজরুল ইন্সটিটিউটের সাবেক নির্বাহী পরিচালক ইকরাম আহমেদ। সামাজিক দায়িত্বের জায়গা থেকে রতনদ্বীপ রিসোর্ট ছাড়াও টিভিএস অটোস, বায়োজিন কসমেটিকাস, মমতাজ জয়া ও গ্রিনডট সহযোগী স্পন্সর হিসেবে কাজটির জন্য সহযোগিতা করেছে।

পরিচালক ফেরদৌস খান জানান, আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম পূর্ববর্তী সময়ে তাঁর জন্মস্থান অবিভক্ত বাংলার বর্ধমান জেলার আসানসোল মহাকুমার চুরুলিয়ার আর্তসামাজিক অবস্থার বর্ণনার মধ্য দিয়ে শুরু বায়োগ্রাফি অব নজরুল (নজরুল জীবনী)। কবির জন্মকাল পিতা-মাতা পরিবার পরিজন বাল্যকাল, লেটোদলে গান গাওয়া, মক্তব ও প্রাথমিকে পড়াশোনা, আসানসোলে রুটির দোকানে কাজ তারপরে ময়মনসিংহ- ত্রিশালে পড়াশোনা-লজিং এবং আসানসোলে ফিরে স্থানীয় বিদ্যালয়ে ছাত্রজীবনের শেষদিন পর্যন্ত ইত্যাদি ঘটনার ধারাবর্ণনা, সংশ্লিষ্ট যায়গার চিত্রধারণ ও গবেষক এবং স্থানীয়দের সাক্ষাতকার দিয়ে সাজানো এই তথ্য চলচ্চিত্রের প্রথম ভাগ।

আছে সৈনিক জীবন এবং সেখান থেকে কলকাতা ফিরে সাহিত্য সাংবাদিকতার কথা যা সময় পরিক্রমায় সাজানো। রাজনৈতিক জীবন, ব্যক্তি তথা পারিবারিক জীবন, জেল জীবনের কথা। সাহিত্য চর্চ্চার প্রত্যেকটি ক্ষেত্র যেমন কবিতা, গল্প, অনুবাদ, গান ইত্যাদি বিষয়ের একটা সারসংক্ষেপ বর্ণনা। গান নিয়ে বিভিন্ন বিজ্ঞজনের কথা আছে তাঁদের কণ্ঠে গানের একদুই লাইন গেয়ে ওঠা দৃশ্য। আবৃত্তিংশ, নাচের অংশবিশেষ ও তাঁর অভিনয় জীবনের কথা আছে। আছে কিছু সংগৃহিত ফুটেজ।

নজরুলের ব্যক্তিগত ও পারিবারিক জীবনের বর্ণনার মধ্যে কুমিল্লায় আগমন, নারগিসের সঙ্গে বিয়ে ঠিক হওয়া, প্রমিলার সঙ্গে বিয়ে, কলকাতায় বিভিন্ন বাড়িতে বসবাস, কৃষ্ণনগরে বসবাস ইত্যাদি বিষয় থাকছে। থাকছে কবির অসুস্থতা প্রসঙ্গ ও চিকিতসা নিয়ে কথা। জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর উদ্যোগে কবিকে স্বপরিবারে ঢাকায় নিয়ে আসা, জাতীয় কবির মর্যাদা দেয়া এবং কবিকে জাতীর জনকের নিখাদ ভালোবাসার নানাদিক।

তাঁর জীবনের শেষ দিনগুলোর কথা, নানা পুরস্কার স্মীকৃতির কথা, কবি নজরুল ইন্সটিটিউট, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, নজরুল তীর্থ ইত্যাদি নানা বিষয়ের উল্লেখ আছে এই তথ্য চলচ্চিত্রে।

উল্লেখযোগ্য যে সমস্ত যায়গায় শুটিং করা হয়েছে তারমধ্যে রয়েছে- ঢাকা, ত্রিশাল, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, কলকাতা, চুরুলিয়া, আসানসোল, দুর্গাপুর, হুগলী, কৃষ্ণনগর ইত্যাদি স্থান।

সাক্ষাতকার প্রদানকারী বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন জাতীয় অধ্যাপক ও কবি নজরুল ইন্সটিটিউট ট্রাস্টি বোর্ড চেয়ারম্যান ড. রফিকুল ইসলাম, জাতীয় অধ্যাপক প্রয়াত ড. আনিসুজ্জামান, আছেন প্রফেসর সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। কবি পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কবি পুত্রবধু প্রয়াত উমা কাজী ও অপর পুত্রবধু কল্যানী কাজী- কবি নাতনী খিলখিল কাজী, ভ্রাতুষ্পুত্র চুরুলিয়ার রেজাউল কাজী।

প্রয়াত শিল্পী খালিদ হোসেন, শিল্পী খায়রুল আনাম শাকিল, রামানুজ দাসগুপ্ত, ড. নুপুর গাঙ্গুলী, বাধন সেনগুপ্ত সহ অনেক শিল্পী গবেষক অংশ নেন।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়- ত্রিশাল ও কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়- আসানসোল এর দুই ভিসি, কবি নজরুল ইন্সটিটিউট এর নির্বাহী পরিচালক, নদীয়া রাজ্যের রাজা, রাণী ও যুবরাজ কথা বলেন বায়োগ্রাফি অব নজরুল ডকুফিল্মে।

একটি আংশিক নাচের দৃশ্যে অংশ নিয়েছেন কলকাতার মাধবী মজুমদার, অন্যএকটি সংক্ষিপ্ত নাচে দেখা যাবে কবি নজরুল ইন্সটিটিউট কুমিল্লা সেন্টাররের কয়েকজন শিশু শিক্ষার্থীকে।

সম্পূর্ণ তথ্যচলচ্চিত্রটি বাস্তব বর্ণনা ও প্রাসংগিক আনডাউট ফুটেজ নির্ভর। ফিকশন বা কল্পিত কথন এখানে একদম নেই।

‘বায়োগ্রাফি অব নজরুল’ এর নেপথ্যে কন্ঠ দিয়েছেন আসাদুজ্জামান নূর ও প্রজ্ঞা লাবণী। ইংরেজী সাব টাইটেল করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. মাসুম বিল্লাহ। মইন আল হেলাল সুপল সম্পাদিত ও আসাদ ও রাজিব এর ক্যামেরায় ধারণ করা এই ডকুফিল্মের ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকে কাজ করেছেন পিন্টু ঘোষ।

রিলিজ পরবর্তী সময়ে ডকুফিল্ম ‘বায়োগ্রাফি অব নজরুল” এর প্রদর্শনী পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে পরিচালক ফেরদৌস খান জানান, আমরা সাধারণত জেলা শহরে শিল্পকলা একাডেমী, গভ: কলেজ ও স্কুল, বিশ্ববিদ্যালয় (যদি ওই শহরে থাকে), অন্য বড় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অডিটরিয়াম বা কোনও সংস্থা / সাংস্কৃতিক সংগঠন কিংবা সংগঠকের উদ্যোগে বিশেষ স্থানে এক বা একাধিক প্রদর্শনী করবো। উপজেলা লেভেলেও অনুরূপ স্থান সিলেকশন করা হবে। বড় শহর বা মহানগরীতে প্রদর্শনী সংখ্যা ও স্থান নির্ধারণে উদার পরিকল্পনা আছে।

দেশের বাইরে সমস্ত বাঙ্গালী কমিউনিটিতে বিশেষ করে তাঁদের বিভিন্ন উৎসব আয়োজনে বায়োগ্রাফি অব নজরুল প্রদর্শনীর ইচ্ছা রাখি’।

Share Button