গোল করার পর মেসিদের উল্লাস। ছবি : সংগৃহীত

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে টানা দুই জয়ের পর তৃতীয় জয়ের পথেই ছিল আর্জেন্টিনা। তবে নিজেদের মাঠে লিওনেল মেসিদের পথ আগলে দাঁড়িয়েছে ভিএআর। ফলে প্যারাগুয়ের সঙ্গে ১-১ ড্র করে চলতি বাছাইপর্বে প্রথম পয়েন্ট খোয়ালো কোচ লিওনেল স্ক্যালোনির শিষ্যরা।

 শুরুটা বলিভিয়া ম্যাচের মতোই নড়বড়ে ছিল স্বাগতিকদের। আক্রমণ তো বটেই, আলবিসেলেস্তেরা রক্ষণেও হিমশিম খাচ্ছিল বেশ। প্যারাগুয়ে গোলটাও আদায় করেছে সে সুযোগে। ২২ মিনিটে সফরকারীদের পেনাল্টির জবাব মেসিরা দিয়েছেন বিরতির একটু আগে। জিওভানি লো সেলসোর কর্নারে মাথা ছুঁইয়ে ম্যাচে সমতা ফেরান নিকোলা গনজালেস।

বিরতির পর ক্রমেই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে থাকা আর্জেন্টিনা একবার প্রতিপক্ষের জালে বল জড়ায় দারুণ এক দলীয় সমন্বয়ে লো সেলসোর কাটব্যাক থেকে অধিনায়ক মেসির নিচু এক শটে। কিন্তু দীর্ঘ ভিএআর পরীক্ষায় দেখা মেলে, আট পাস আর ২৭ সেকেন্ডের বিল্ড-আপের আগে ফাউল করা হয়েছিলো প্যারাগুয়ের এক খেলোয়াড়কে। ফলে বাতিল হয় গোলটি।

এটাই প্রথম নয়, পুরো ম্যাচেই আলোচনায় ছিল রেফারিং। প্রথমার্ধে আর্জেন্টিনা বক্সে নিকলাস অটামেন্ডির হাতে বল লাগলেও প্যারাগুয়েকে পেনাল্টি দেননি রেফারি রাফায়েল ক্লস। এরপর কিছু সময় পরে এক্সেকিয়েল প্যালাসিওসকে মারাত্মক ফাউল করা হলেও খেলা চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তে অটল ছিলেন রেফারি। ম্যাচের পর জানা যায় চোটের কারণে বড় সময়ের জন্যই ছিটকে গেছেন প্যালাসিওস। এরপরই গোল বাতিলের সিদ্ধান্ত! কোচ স্ক্যালোনি চটেছেন এ কারণেই।

আর্জেন্টাইন কোচের ভাষ্য, ‘আমরা এক খেলোয়াড়কে বড় সময়ের জন্যে হারিয়েছি। ফাউলটা যখন করা হলো, ভিএআরে দেখা হলো না! এরপর বালবুয়েনা ছিল প্যারাগুয়ে বক্সে। বাতিল হওয়া গোলটার আগে বেশ কয়েকটা পাস খেলা হয়েছে!’

ম্যাচশেষে কোচ স্ক্যালোনির প্রশ্ন তুললেন ভিএআরের অস্পষ্ট মানদণ্ড নিয়েও। বললেন, ‘কেউ ফুটবলটা এমন ভাবে দেখতে চায় না। আমি বিশ্বাস করি, কর্তৃপক্ষকে ভিএআরের ইস্যুটা নিয়ে একটা সমাধান খুঁজে বের করতে হবে। আমি বলছি না এটা ভালো কিংবা খারাপ, আমি চাই এর মানদণ্ড যেন পরিষ্কার করে উল্লেখ করা হয়।’

এই ড্রয়ের পরেও আর্জেন্টিনা আছে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের শীর্ষেই। আজ শনিবার ভোরে ব্রাজিল ভেনেজুয়েলাকে হারালেই অবশ্য শীর্ষস্থান হারাবে আলবিসেলেস্তেরা।

Share Button