ফ্রান্সের নিস শহরের গির্জার সামনে স্থানীয়দের শ্রদ্ধাঞ্জলী

ফ্রান্সে মহানবী (সা.)-কে অবমাননার দায়ে শিক্ষককে গলা কেটে হত্যার ঘটনা ও নিস শহরে গির্জায় হামলার ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা বলে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রসিকিউটররা। এক প্রতিবেদন এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

 গত ১৬ অক্টোবর প্যারিসের রাস্তায় শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে ‘আল্লাহু আকবর’ বলে হত্যা করেছিল এক তরুণ। কারণ, ওই শিক্ষক ক্লাসে মহানবীর কার্টুন দেখিয়ে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন। শিক্ষকের ওপর হামলাকারী আবদৌলখ নামের ওই তরুণ ঘটনাস্থলেই পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছিলেন।

প্রসিকিউটররা বলছেন, আবদৌলখের সঙ্গে ২৯ অক্টোবর নিস শহরের গির্জায় অভিযুক্ত হামলাকারী ইবরাহিমের সংযোগ পাওয়া গেছে। ইবরাহিমের মোবাইলে আবদৌলখের ছবি পাওয়া গেছে। এই দুই হামলায় কোনোভাবে একটি সংযোগ অবশ্যই আছে।

গত ২৯ অক্টোবর ফ্রান্সের নিস শহরে অবস্থিত এক গির্জায় হামলাকারীর ছুরিকাঘাতে তিনজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়। নিহতদের মধ্যে এক নারীর শিরচ্ছেদ করা হয়।

প্রসিকিউটররা বলেন, ইবরাহিমের মোবাইল থেকে প্রাপ্ত তথ্য পর্যালোচনা করে জঙ্গীসংগঠন আইএসের সঙ্গে সংযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে আরো তদন্ত চলছে।

Share Button