রায়হান।ছবি: সংগৃহীত

সিলেটের বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে মারা যাওয়া রায়হান আহমদের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগ আনা শেখ সাইদুর রহমানকে রবিবার তিনদিনের রিমান্ডে নিয়েছে পিবিআই। একটি প্রতারণা মামলায় তাকে রিমান্ডে নেওয়া হয় বলে জানান পিবিআই সিলেটের পুলিশ সুপার খালেদ উজ জামান। একইদিন দুপুরে সিলেটের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুর রহমান এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

 এর আগে দুপুরে পিবিআই তাকে আদালতে হাজির করে। এ সময় শেখ সাইদুর রহমানকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন জানায় পিবিআই। পরে শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত ২৫ অক্টোবর শেখ সাইদুর রহমানকে আটক করে পিবিআই। একইদিন বিকালে তাকে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এরপর গত ২ নভেম্বর শেখ সাইদুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ মামলা দায়ের করা হয়। সৌদি রিয়াল দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে সাইদুরের বিরুদ্ধে মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন প্রাইভেটকার চালক নগরীর লন্ডনি রোডের বাসিন্দা আফজাল হোসেন আলাল। এই মামলায় আজি সাইদুরকে রিমান্ডে নিয়েছে পিবিআই।

১০ অক্টোবর মধ্যরাতে রাতে শেখ সাইদুর রহমান বন্দরবাজার এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে থাকা কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে জানান তিনি কাষ্টঘর এলাকায় ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন। তার অভিযোগ পেয়ে রাত আড়াইটার দিকে কাষ্টঘর থেকে রায়হানকে তুলে নিয়ে আসে পুলিশ। এরপর তাকে পুলিশ ফাঁড়িতে এনে নির্যাতন চালানো হয়।

পরে ১১ অক্টোবর সকালে গুরুতর আহত অবস্থায় রায়হানকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন বন্দরবাজার ফাঁড়ির এএসআই আশেকে এলাহী। সকাল ৮ টার দিকে হাসপাতালেই মারা যান রায়হান।এ ঘটনায় রায়হানের স্ত্রী হত্যা ও হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইনে থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর বন্দর বাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবরসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিন জনকে প্রত্যাহার করা হয়। আকবর প্রায় এক মাস পলাতক থাকার পর গ্রেফতার হন এবং বর্তমানে তিনি পিবিআইর রিমান্ডে আছেন। উল্লেখ্য মামলাটি পিবিআই তদন্ত করছে।

Share Button