ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

তুমুল বিতর্কের মুখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সান্ধ্যকালীন কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। আজ শুক্রবার বেলা ১১টায় পরীক্ষা গ্রহণের কথা থাকলেও পৌনে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পরীক্ষা স্থগিতের ঘোষণা দেয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 এ বিষয়ে উপাচার্য জানান, আজ সকালে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আব্দুল মঈন উপাচার্যের সঙ্গে দেখা করতে গেলে উপাচার্য সান্ধ্য কোর্স নিয়ে নীতিমালা না হওয়া পর্যন্ত পরীক্ষা স্থগিতের নির্দেশ দেন।

এদিকে দৈনিক ইত্তেফাকসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে বৃহস্পতিবার রাতে এ পরীক্ষা নিয়ে খবর প্রকাশিত হয়। পরে আজ সকালে এই পরীক্ষা স্থগিত করা হয়৷ হঠাৎ এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন ভর্তি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে আসা পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে আসা এক শিক্ষার্থী বলেন, আমাদের অধিকাংশ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসেছে। এ করোনার মধ্যে এ ধরনের নাটক বিশ্ববিদ্যালয় না করলেও পারতো। পরীক্ষার্থীরা, অভিভাবকরা করোনার ঝুঁকি নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসেছে। এরই মধ্যে ঘোষণা এসেছে ভর্তি পরীক্ষা হবে না।

ভর্তি পরীক্ষায় মোট ১১ শত পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করার কথা ছিল। এর মধ্যে ভর্তি নেয়া হতো ৭২০ জন শিক্ষার্থীকে। কিন্তু আজ চার শতাধিক শিক্ষার্থী পরীক্ষার হলে উপস্থিত ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল ও উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদেরও অজান্তে এ ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ।

এর আগে, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মাদ আব্দুল মঈন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০ নভেম্বর শুক্রবার বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের এমবিএ (ইভনিং) প্রোগ্রামের (৪৫তম ব্যাচ) ভর্তি পরীক্ষা আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, আজিমপুর, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা গ্রহণের সময় সকাল ১১টা–দুপুর ১২টা পর্যন্ত।

ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের মধ্যে রয়েছে ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম, মার্কেটিং, ফিন্যান্স, ব্যাংকিং অ্যান্ড ইনস্যুরেন্স, ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ও অর্গানাইজেশন স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড লিডারশিপ বিভাগ।

এ নয়টি বিভাগের সান্ধ্যকালীন কোর্স ও চারটি প্রফেশনাল কোর্সে প্রতি বছর প্রতিটি সেশনে ৭২০ জন করে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়। চলতি বছরের পঁচিশ ফেব্রুয়ারি সান্ধ্যাকালীন কোর্স রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে গঠন করা হয় ‘সান্ধ্য কোর্স পর্যালোচনা ও যৌক্তিকতা যাচাই কমিট।’ ওই কমিটিকে পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দিতে সময় দেয়া হয়। এই পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে এসব অনিয়মিত কোর্সে কোনো ধরনের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি, প্রেস, ইনটেক না করার নির্দেশ দেয়া হয়। এর মধ্যে যারা বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে, সেগুলো স্থগিত আর যে কোর্সগুলো চলমান আছে, সেগুলো চলমান থাকবে বলে জানানো হয়।

কিন্তু এরই মধ্যে করোনা পরিস্থিতি শুরু হওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় বিশ্ববিদ্যালয়। সিদ্ধান্ত জানাতে পারেনি কমিটি। করোনার কারণে বন্ধ এ কোর্স নিয়ে ফের শুরু হয়েছে বিতর্ক। ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আব্দুল মঈনের সাথে বেশ কয়েকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

Share Button