রিমোট কন্ট্রোলড বন্দুক দিয়ে হত্যা করা হয় ইরানী বিজ্ঞানীকে। ছবি : সংগৃহীত

ইরানের পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদকে একটি রিমোট কন্ট্রোলড বন্দুক দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গত শুক্রবার ইরানের রাজধানী তেহরানের কাছে এক সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হয়েছেন তিনি। ফাখরিজাদেহকে ওপর হামলার পেছনে ইসরাইল রয়েছে বলে দাবি করছে ইরান।

এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামিনি এবং অন্যান্য নেতারা। শুক্রবার একটি বুলেটপ্রুফ গাড়িতে করে তার স্ত্রীকে নিয়ে কোথাও যাচ্ছিলেন। সে সময় নিরাপত্তাবাহিনীর তিনটি গাড়ি তাদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ছিল। এসময় তার গাড়িতে একটি বুলেট লাগার শব্দ হলে তা দেখতে তিনি বের হন। এরপরেই একটি রিমোট কন্ট্রোলড বন্দুক থেকে গুলি ছোড়া হয়।

জানা যায়, ফখরিজাদেহের গাড়ি থেকে ১৫০ মিটার দূর থেকে তাকে গুলি করা হয়েছিল। তাকে অন্তত ৩টি গুলি করা হয়। এসময় ফখরিজাদেহের দেহরক্ষীকেও গুলি করা হয়। তাদের উপর প্রায় ৩ মিনিট হামলা হয়েছে।

এই ঘটনার পর খামেনি টুইট বার্তায় বলেন, ইরানী কর্মকর্তারা এই ‘হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন করবে এবং অপরাধীদের শাস্তি দিবে’।

এর আগে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি শনিবার বলেন, ইরান যথাসময়ে এই হামলার জবাব দেবে। তিনি এই হামলার জন্য ইসরায়েলকে দায়ী করেছেন।

রুহানি আরো বলেন, ইহুদিবাদীদের পাতানো ফাঁদে পা দেয়ার ব্যাপারে দেশের জনগণ যথেষ্ট সচেতন। ইসরাইল মধ্যপ্রাচ্যে গোলযোগ এবং অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির পরিকল্পনা করেছে কিন্তু তাদের জানা উচিত যে, আমরা এরইমধ্যে তাদের পরিকল্পনা জেনে গেছি এবং তারা তাদের শয়তানি লক্ষ্য অর্জন করতে সফল হবে না।

Share Button