ম্যাচের বাকি আর এক দিন। তার আগে শেষ সময়ের প্রস্তুতি সারছেন জামাল ভুঁইয়ারা  —বাফুফে

স্বস্তির খবর হচ্ছে বুধবার বিকেলে হেড কোচ জেমি ডে দোহায় পৌঁছালে তার নমুনা নেয়া হয় এবং মাত্র এক দিনের কোয়ারিন্টিন দেওয়া হয়েছে। ফল নেগেটিভ হলেই অনুশীলনে নামবেন জেমি।

 শুক্রবার কাতারের বিপক্ষে বাংলাদেশের ফুটবল ম্যাচ। ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ এবং ২০২৩ এশিয়ান কাপ ফুটবলের বাছাইয়ের ফিরতি ম্যাচ দোহায়। সেই ম্যাচ সামনে রেখে এখন দোহায় শেষ মুহূর্তের অনুশীলন চলছে। বাংলাদেশ আক্রমণ করবে গোল করবে, ম্যাচ জিতে যাবে, এমন কোনো বিষয় নয়। কাতার এশিয়ান কাপ ফুটবল চ্যাম্পিয়ন দল। আর বাংলাদেশ সাফের গ্রুপ পর্ব হতে বিদায় নেয়। শক্তিশালী কাতারের বিপক্ষে বাংলাদেশের লড়াইটা কেমন হবে তা সহজেই অনুমেয়।

তার পরও অতীত বলছে, ঢাকায় হোম ম্যাচে বাংলাদেশ ০-২ গোলে হারলেও দারুণ খেলেছিল। সেই ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে বৃষ্টি ভেজা মাঠে লড়াইয়ে কাতারকে খুব একটা চেনা যায়নি। তাই হয়তো ফিরতি ম্যাচে কাতারের নতুন রূপ দেখা যেতে পারে। যারা ফুটবল বোঝেন কিংবা ফুটবল ভালোবাসেন তারা কাতার এবং বাংলাদেশের পার্থক্য দেখেন। বাংলাদেশের ফুটবলারদের বোঝানো হচ্ছে অযথা কোনো ভুল করা যাবে না। হাতে ধরে ভুল করলে সেটির খেসারত দিতে হবে। যার যার পজিশনে দায়িত্বপূর্ণ ফুটবল খেলতে হবে। দলের হেড কোচ জেমির অনুপস্থিতিতে দোহায় কোচিং স্টাফ খেলোয়াড়দের মাথায় ঢুকিয়ে দিচ্ছেন এমন কোনো ভুল করা যাবে না কিংবা এমন কোনো ঝুঁকি নেওয়া যাবে না, যার কারণে ভুলের মাশুল দিতে হয়।

ফিফা র্যাংকিংয়ে কাতার ৫৯, বাংলাদেশ ১৮৪ নম্বরে। কাতার সম্প্রতি কোস্টারিকা এবং দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে। কাতারের স্প্যানিশ কোচ ফেলিক্স সানচেজ তার দল নিয়ে এতটুকু সময় নষ্ট করছেন না। ই গ্রুপে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে কাতার গ্রুপের টপে আছে। ১২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ওমান। তার পরও কাতার কানো দলকে খাটো করে দেখছে না। আবারও নতুন করে একাধিক ফুটবলার দলে নিয়েছেন স্প্যানিশ কোচ সানচেজ ফেলিক্স। দলটাকে বালো করে যাচাই বাছাই করে নিচ্ছেন।

কাতার সরাসরি বিশ্বকাপ ফুটবলের চূড়ান্ত পর্বে খেলবে। তার পরও কাতারকে প্রস্তুতির জন্য আগামী বছর যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিতব্য কনকাফ গোল্ডকাপ ফুটবলে খেলার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। সেখানে কাতার খেলবে ডি গ্রুপে, হন্ডুরার্স, পানামা ও গ্রানাডা কাতারের প্রতিপক্ষ। বোঝাই যায় কাতার কী মিশন নিয়ে ফুটবলে নেমেছে। তাদের বিপক্ষে বাংলাদেশের লড়াইয়ে কতো ফারাক থাকবে তা বলে দেওয়ার প্রয়োজনও নেই। তার পরও এই কাতারের বিপক্ষে বাংলাদেশ আত্মবিশ্বাস নিয়েই লড়াই করবে।

Share Button