[মডেল আল সিমি। সংগৃহীত]

আল সিমি। পেশায় তিনি একজন মডেল। ইনস্টাগ্রামে বেশ জনপ্রিয় তিনি। কয়েকদিন আগে মিশরে পিরামিডের সামনে অশ্লীল ফটোশুট করায় গ্রেফতার করা হলো তাকে। সেই সঙ্গে তার ফটোগ্রাফারও গ্রেফতার হয়েছেন। এরকম ঐতিহ্যবাহী স্থাপত্যের সামনে কীভাবে এমন ছবি তোলা হল, সেই প্রশ্ন তুলেছেন ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা। আবার কেউ কেউ মডেল আল সিমি ও ফটোগ্রাফার হৌসার গ্রেফতার নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে।

তাকে গ্রেফতারের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। ওই মডেলের ফ্যানের সংখ্যা নেহাত কম নয়। তাদের অনেকের কাছেই ঘটনাটিকে একেবারে অবিশ্বাস। প্রত্নতাত্ত্বিক এলাকায় ছবি তোলার বিষয়ে আদৌ কোনও নিষেধাজ্ঞা আছে কিনা তাই নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন তারা।

অনেকেই আবার বলেছেন শিমির ছবিগুলো অশ্লীল নয় এই ধরণের পোশাকই প্রাচীন মিশরে ব্যবহার করা হতো। কাজেই পিরামিডের প্রেক্ষাপটে এই পোশাককে একেবারে স্বাভাবিকই বলা যায়। মিশরে এর আগে এতটা রক্ষণশীলতা দেখা যায়নি বলেই দাবি করেছেন তারা।

একটি ছবিতে দেখা যায়, ছয়জন গর্ভবতীকে নিয়ে হাজির এক ধনকুবের। ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘সকলের বাবাই আমি।’ এরকম ঐতিহ্যবাহী স্থাপত্যের সামনে কীভাবে এমন ছবি তোলা হল, সেই প্রশ্ন তুলেছেন ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা।

এদিকে মডেল সিমি জানিয়েছেন, পিরামিডের সামনে ছবি তোলা নিষেধ ছিল, এটি তিনি জানতেন না। তারা পিরামিডের ঐতিহ্য তুলে ধরতে চেয়েছিলেন, আপত্তিকর ছবি তোলা তাদের উদ্দেশ্য ছিল না।

Share Button