[স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাড়িচালক (বরখাস্ত) আবদুল মালেক। ফাইল ছবি]

অস্ত্র ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের দুই মামলায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাড়িচালক (বরখাস্ত) আবদুল মালেক ওরফে বাদলকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বুধবার ( ৯ ডিসেম্বর) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম এই আদেশ দেন। দুই মামলায় চার দিনের রিমান্ড শেষে মালেককে আদালতে হাজির করে কারাগারে পাঠানোর আবেদন করে মামলার তদন্ত সংস্থা র‌্যাব-১। এর আগে, গত ১ ডিসেম্বর দুই মামলায় চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

উল্লেখ্য, অবৈধ অস্ত্র, জাল নোট ব্যবসা ও চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে র‌্যাব-১ গত ২০ সেপ্টেম্বর ভোরে রাজধানীর তুরাগ এলাকা থেকে আবদুল মালেককে গ্রেফতার করে। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, ৫ রাউন্ড গুলি, দেড় লাখ বাংলাদেশি জাল নোট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

এই ঘটনায় র‌্যাব-১-এর পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যান) আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে দুটি মামলা দায়ের করেন। পরদিন দুই মামলায় মালেকের ৭ দিন করে ১৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ৫ অক্টোবর রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

রাজধানীর তুরাগে গাড়িচালক আবদুল মালেকের রয়েছে ২৪টি ফ্ল্যাটবিশিষ্ট ৭ তলাবিশিষ্ট দুটি বিলাসবহুল বাড়ি। একই এলাকায় ১২ কাঠার প্লট। এছাড়া হাতিরপুলে ১০ তলা ভবনের নির্মাণকাজ চলছে।

Share Button