চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥
চাঁপাইনবাবগঞ্জে দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর হত্যা মামলার আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার এস.আই ও বারঘরিয়া বিট পুলিশ এর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস.আই মো. সোহেল রানা বৃহস্পতিবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে আসামীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামী হচ্ছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বারঘরিয়া ইউনিয়নের স্কুলপাড়ার মো. রমজান আলীর ছেলে মো. মাসুদ রানা (২৪)। গ্রেফতার হওয়া মাসুদ সদর উপজেলা বারঘরিয়া ইউনিয়নের বিশ^াসপাড়ার আব্দুস সাত্তারের মেয়ে মোসা. সাহিদা খাতুন বৃষ্টি হত্যা মামলার প্রধান আসামী। মামলার এজাহার ও পুলিশ সুত্র জানায়, ২০১৮ সালের ২ এপ্রিল সদর উপজেলা বারঘরিয়া ইউনিয়নের বিশ^াসপাড়ার আব্দুস সাত্তারের মেয়ে মোসা. সাহিদা খাতুন বৃষ্টির সাথে বিয়ে হয় একই এলাকার স্কুলপাড়ার মো. রমজান আলীর ছেলে মো. মাসুদ রানার। বিয়ের পর জানা যায়, মাসুদ এর আগেও বিয়ে করেছে এবং স্ত্রী রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই মাসুদ নানাভাবে সাহিদা খাতুন বৃষ্টির উপর মানষিক ও শারিরিক নির্যাতন চালায়। একপর্যায়ে বৃষ্টিকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে। কিন্তু ২ দফায় ষড়যন্ত্র থেকে বেঁচে যায় মোসা. সাহিদা খাতুন বৃষ্টি। কিন্তু মোটা অংকের যৌতুকের দাবিতে মোসা. সাহিদা খাতুন বৃষ্টির উপর অত্যাচারের মাত্রা বাড়তে থাকে। মাসুদের নির্যাতনে একপর্যায়ে বৃষ্টি শারিরিকভাবে চরম অসুস্থ হয়ে পড়লে বৃষ্টির ভাই,মাসহ অন্যনা আত্মীয়রা চিকিৎসার জন্য প্রথমে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনে ভর্তি করে চিকিৎসা করায়। চিকিৎসার পরও বৃষ্টি স্বুস্থ হয়নি, অবেশেষে ২০১৯ সালের ৪ ডিসেম্বর বাবার বাড়িতে মৃত্যু হয়। এর আগে ২০১৮ সালের ১৬ আগষ্ট মোসা. সাহিদা খাতুন বৃষ্টি নিজে বাদী হয়ে ঢাকার পল্লবী থানায় একটি নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করে। বিচার পাওয়ার আগেই মারা যায় মোসা. সাহিদা খাতুন বৃষ্টি। এই মামলার সুত্র ধরেই আসামী মাসুদ রানার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে আদালত। প্রেক্ষিতে সদর থানা পুলিশ বুধবার বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে মাসুদকে গ্রেফতার করে। এব্যাপারে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার এস.আই ও বারঘরিয়া বিট পুলিশ এর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস.আই মো. সোহেল রানা জানান, একটি হত্যা মামলার ওয়ারেন্টের ভিত্তিতে মাসুদকে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Share Button