বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ভবন। ফাইল ছবি

যেকোনো সিরিজের জন্য আগে প্রাথমিক ও পরে চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে সেই রীতি থেকে সরে আসলেন নির্বাচকরা। করোনা সতর্কতার কারণে স্কোয়াডের প্রত্যেক সদস্যকেই থাকতে হবে জৈবিক সুরক্ষা বলয়ে। তাই একেবারেই চূড়ান্ত স্কোয়াড নির্বাচিত করতে চান নির্বাচক। যা নতুন বছরে ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন।

আগামী ২০ জানুয়ারি ওয়ানডে ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হবে ক্যারিবিয়ানদের বাংলাদেশ সফর। যেহেতু টেস্ট সিরিজ পরে অনুষ্ঠিত হবে তাই আগে ওয়ানডে স্কোয়াড ঘোষণা করবেন নির্বাচকরা। স্কোয়াডটি হতে পারে ২০ থেকে ২২ সদস্যের, যেখানে নতুন মুখ থাকার সম্ভাবনা অনেকটাই ক্ষীণ।

রবিবার সংবাদমাধ্যমকে হাবিবুল বাশার বলেন, ‘নতুন মুখ আসছে কি না নির্ভর করবে স্কোয়াড কতজনের হয় তার ওপরে। যদি ১৬ বা ২০ জনের হয় তাহলে সম্ভাবনা কম। আবার অনুশীলন ক্যাম্পে ২টা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে সেক্ষেত্রে ২২ জনের দলও হতে পারে। প্রাথমিক স্কোয়াড যেটা সেটাই চূড়ান্ত স্কোয়াড। কারণ যখনই স্কোয়াড হবে তখনই তো সবাই জৈবিক সুরক্ষা বলয়ে চলে যাবে। পরে আর এটা ভাঙাভাঙি হবে না। ২০২০ সালে আমরা স্কোয়াড ঘোষণা করতে চাচ্ছি না, নতুন বছরে।’

বিসিবি দেরী করলেও আগামী সপ্তাহেই বাংলাদেশ সফরের জন্য দল ঘোষণা করবে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ । দেশটির স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘এটা সংক্ষিপ্ত সিরিজ এবং আমরা ওয়ানডের খেলোয়াড়দেরও সঙ্গে রাখবো। কোনো খেলোয়াড় যদি ইনজুরি পরে, সেই কারণে ওয়ানডে সিরিজ বা টেস্ট সিরিজের প্রস্তুতির জন্য তাদের আমরা সঙ্গে রাখবো।’

ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফ ছাড়াও আসন্ন বাংলাদেশ সফরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সঙ্গে থাকবেন একজন মনোবিজ্ঞানী এবং একজন ডাক্তার। তিন ওয়ানডে ও দুই টেস্ট ম্যাচ খেলতে আগামী ১০ জানুয়ারি ঢাকায় পা রাখবে ক্যারিবিয়ানরা।

Share Button