[আদালতে নেওয়া হয় আসামিকে। ছবি: সংগৃহীত ]

কুষ্টিয়ায় বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙচুর মামলায় যুবলীগের বহিষ্কৃত নেতা আনিসুর রহমান ও ঘনিষ্ঠ দুই সহযোগীসহ তিন আসামির প্রত্যেকের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সেলিনা খাতুন আসামিদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ জানায়, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কুমারখালী থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রাকিবুল হাসান গ্রেফতারকৃত তিন আসামির প্রত্যেকের সাত দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করেন আদালতে। শুনানি শেষে বিচারক প্রত্যেকের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আসামিরা হলেন- কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়ন যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ও কয়া গ্রামের মহিউদ্দিনের ছেলে আনিসুর রহমান আনিস (৩০), তার সহযোগী যুবলীগ কর্মী রায়ডাঙ্গা গ্রামের শাহাব উদ্দিনের ছেলে হৃদয় আহমেদ (২৫) ও একই গ্রামের নাজিম উদ্দিনের ছেলে সবুজ হোসেন (২০)। তবে এ ঘটনায় জড়িত বাচ্চু নামের অপর পলাতক আসামিকে পুলিশ এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর রাকিবুল হাসান জানান, কোর্টের লিখিত আদেশ পাওয়ার পর পরই আসামিদের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হবে।

গত ১৭ ডিসেম্বর রাত ১টার দিকে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার অন্তর্গত কয়া মহাবিদ্যালয় গেটের সামনে স্থাপিত বিপ্লবী বাঘা যতীনের আবক্ষ ভাস্কর্যটি ভাঙচুর করে যুবলীগ নেতাসহ তার সহযোগী দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় কয়া কলেজের অধ্যক্ষ হারুন-অর-রশিদ বাদী হয়ে কুমারখালী থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেন।

Share Button