রংপুর ব্যুরো:
জাতীয় সংগীত দিয়ে শুরু করেন ২য় দিনের মতো বই উৎসব।স্বাস্থ্যবিধি মেনেও নতুন বইয়ের গন্ধে মাতোয়ারা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের।আর বিনামুল্যে নতুন বই পেয়ে আনন্দের ঢেউ এর শেষ নেই রংপুরের শিক্ষার্থীদের।
আজ শনিবার সকাল  ১১টায় রংপুর জিলা স্কুলে বই বিতরণ করেন বিভাগীয় কমিশনার আবদুল ওয়াহাব ভুঞা। বই উৎসব মানে অনেক বড় একটা উৎসবের রং হলেও করোনার কারণে এবারের সেই চিত্র নেই।তারপরেও স্বাস্থ্য বিধিমেনে যারা বই নিতে এসেছেন তাদের মধ্যে ছিল আনন্দের ঢেউ।বই পেয়ে বান্ডিল খুলে মাঠেই পড়তে বসেছেন অনেকেই।
রংপুর জিলা স্কুলের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার সিনহা বলেন,করোনায় যথাসময়ে বই দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।পাশাপাশি ভালো পড়ালেখার করার প্রতিশ্রুতি এই শিক্ষার্থীর।প্রধানমন্ত্রী আমাদের জন্য অনেক ভালো কাজ করছেন।এই করোনায় সারাদেশে প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের বিনামুল্যে সরকার বই দিয়েছেন আমরা অনেক খুশি।
রংপুর জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমার জানান,সরকারী নির্দেশ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে নতুন বই বিনামুল্য বিতরণ করা হচ্ছে। আর শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে অনেক খুশি।খুশি অভিভাবক ও শিক্ষকরাও।
রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান জানান,রংপুর জেলায় পহেলা জানুয়ারী থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনেও বিনামুল্যে নতুন বই বিতরণ করা হচ্ছে। করোনায় যাতে করে কোন শিক্ষার্থীর সমস্যা না হয়।এর জন্য অভিভাবকদের ডেকে বই দেয়া হচ্ছে।
এসময় রংপুর বিভাগীয় কমিশনার আবদুল ওয়াহাব ভুঞা জানান,স্বাস্থ্যবিধি মেনেও নতুন বই বিতরণ করা হচ্ছে বিভাগে। আর শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলেদেন বিভাগীয় কমিশনার।তিনি বলেন,শিক্ষকরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে এই বই বিতরণ করবেন।যাতে করে শিক্ষার্থীরা ভালো করে লেখাপড়া করতে পাবেন।সরকার বিনামুল্যে এই বই সারাদেশে শিক্ষাথীর মাঝে বিতরণ করছেন।
এবার এই বিভাগে প্রাথমিক পর্যায়ে আগামী ১২ দিনে ৩০ লাখ ৪৩ হাজার ৯১২ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১ কোটি ২৭ লাখ ৭ হাজার ৩৮৮ টি বই দেয়ার জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে।মাধ্যমিক পর্যায়ে ১৪লাখ ১৮ হাজার ৮শ৪৪টি বই বিতরণ করা হবে।
Share Button