সংগীতশিল্পী আসিফ আকবর। ছবি: সংগৃহীত

সম্প্রতি জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী আসিফ আকবরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন সংগীতশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি। এ বিষয়ে তেমন কোন মন্তব্য করেননি আসিফ। তবে বছরের প্রথমদিক থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একের পর স্ট্যাটাস দিয়ে যাচ্ছেন এই সংগীতশিল্পী। বলা যায় বছরের শুরু থেকেই বেশ ঝামেলায় রয়েছেন আসিফ। ঝামেলার বিষয় তুলে ধরে সোমবার দুপুরে ফেসবুকে একটি বিশাল স্ট্যাটাস দিয়েছেন আসিফ। তার স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো:

আসিফ লিখেছেন, ‘আমার মামলা নিয়ে না ভেবে আমাদের গান শুনুন। ২০০৩/০৪ সালে দুবার পাবনার হেমায়েতপুরে অবস্থিত বাংলাদেশের পূর্নাঙ্গ মেন্টাল হসপিটালে গিয়েছিলাম। ওখানকার বাসিন্দাদের সাথে অনেক সময় কাটিয়েছি। নিয়ম ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে ভিকটিমদের সাথে মিশেছি। তাদের হঠাৎ করে আক্রমনাত্মক হয়ে যাওয়াটা মাথায় রেখে মিশে গেছি। খুব শান্তভাবে আমাদের পরস্পরের ভাবের আদানপ্রদান হয়েছে । ঊনাদের সাথে অনেক মতবিনিময় করেছি।

একজন ছিলেন বুয়েটের সাবেক ছাত্র। তিনি রেজিষ্টার খাতা হাতে নিয়ে সঙ্গ দিচ্ছিলেন আমাকে। ভদ্রলোক ব্যাপক জ্ঞানী। হেমায়েতপুর গারদের বাসিন্দাদের সাথে খুব ভালভাবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন আমাকে। ওখানে গেলেই সব মানুষ পাগল হয়ে যায়, বিষয়টা এমন নয়। দুইদিন তাদের সাথে মিট করার পর একটা সিদ্ধান্ত পেয়েছি। উনারা আসলে কেউ পাগল নন, ষড়যন্ত্র করে সম্পত্তির লোভে আত্মীয়স্বজনরা তাদের পাগল বানিয়ে পাগলা গারদে ঢুকিয়েছেন। এ বিষয়ে তাদের আত্মবিশ্বাস আমাকে মুগ্ধ করেছে। জেলে যাওয়ার পর কারাবন্ধুরা জানতে চেয়েছে কি মামলায় ঢুকেছি। আইসিটি মামলা খেয়ে অন্দর হয়েছি শুনে তারা বিরক্তই হয়েছে। কথায় কথায় মামলা হওয়ায় এ সমস্ত ফালতু আইনের আসলে কোন মেরিট নেই। জেলখানা আর পাগলা গারদের মানুষগুলো সবসময় নিজেদের নির্দোষ মনে করে, সত্য-মিথ্যা আল্লাহ জানেন। আমি দু’পক্ষের সাথে মিশে বুঝেছি সবাই সলিড, বাকী সব ষড়যন্ত্র।’

আমার মামলা নিয়ে না ভেবে আমাদের গান শুনুন। ২০০৩/০৪ সালে দুবার পাবনার হেমায়েতপুরে অবস্থিত বাংলাদেশের পূর্নাঙ্গ মেন্টাল…

Posted by ASIF on Saturday, January 2, 2021

আসিফ আরো লিখেছেন, ‘কতোজন কতো মানুষকে নিয়ে কতো মন্তব্য করে, আলোচনা করে। আমি যে কোন কথা বললেই পুলিশ সত্যতা খুঁজে পায়। আসলেই এই সততাকে আমি লালন করি। সবচেয়ে বড় কথা তদন্তকারী অফিসাররা আমার ক্ষেত্রে খুব ব্রিলিয়ান্ট দায়িত্ব পালন করে। তাদের অবজার্ভেশনে রাষ্ট্রের ভয়ঙ্কর ক্রিমিনাল হিসেবে আমিই সেরা। ভেবেছিলাম সব সয়ে চুপ থাকবো। আসলে আমার সাথে শান্তি শব্দটাই মার্চ করেনা কখনো। সত্যি বললে ক্ষমতাসীন ছড়িওয়ালা সুযোগ পায় ছড়ি ঘুরানোর, আর মিথ্যাতো বলতেই পারিনা। তবে এদেশে পাগলদের ফান্ডামেন্টাল অধিকার থাকা প্রয়োজন যেন কাউন্টার মামলা করতে পারে, পাশাপাশি কেউ কেউ যেন জমিদারী পায় পার্লামেন্টের মাধ্যমে এটাই প্রত্যাশা। ঝামেলা আমার নিত্যসঙ্গী, সঙ্গত কারনে এ বছরও ঝামেলার মধ্যেই থাকতে চাই। আপনারা যারা ভদ্দরলোক তারা বরাবরের মতো লেজ গুটিয়ে রাখুন, প্রয়োজনে নিজের লেজ চাটতে থাকুন। মামলা হামলা যাই হোক, এ্যাকশন মুডেই থাকবো ইনশাআল্লাহ। ধান্দাবাজ নয়, বেসিক পাগল অধিকারের পক্ষেই কাজ করবো সবসময়।’

Please Boycott chanel 24 …

ভালবাসা অবিরাম…

Share Button