লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ঃ

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে ২ গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহতরা রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ৩ জানুয়ারি (রবিবার) বিকেল উপজেলার ডোননদী দীগন্ত ফাউন্ডেশনের আয়োজনে ডোননদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রামগঞ্জ থানা ওসি তদন্ত কার্তিক চন্দ্র বিশ্বাসের নেতৃত্বে একাধিক পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সংঘর্ষের সময় ছবি ও ভিডিও করতে গেলে রামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক কাউছার হোসেনের উপর এলোপাতাড়ি হামলা করে ব্যাবহৃত মোবাইল হ্যান্ডসেট এবং ডিএসএলআর ক্যামেরা চিনিয়ে নিয়ে যায়। সৃষ্ট ঘটনায় সাংবাদিক কাউছার হোসেন বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা ৩০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ডোননদী দিগন্ত ফাউন্ডেশন প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করে। ম্যাচের ফাইনাল খেলায় নোয়াগাঁও গ্রামের ফরিদ মেম্বার বনাম ডোননদী ক্রীড়া সংঘের মধ্যে খেলা চলছিল। ম্যাচ পরিচালনা কমিটির বিতর্কিত সিদ্ধান্তের কারনে খেলার এক পর্যায়ে দুপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে ডোননদী দিগন্ত ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা সফিকুল ইসলাম নানার নেতৃত্বে একটি সশস্ত্র গ্রুপ দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র লাঠি, সোটা নিয়ে নোয়াগাও ক্রীড়া সংঘের সমর্থকদের উপর হামলা করে। এসময় দু গ্রামবাসী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে সংঘর্ষের খবর পেয়ে রামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে হামলাকারীরা কর্তব্যরত সাংবাদিকদের উপর চড়াও হয়। এসময় রামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক কাউছার হোসেনের উপর হামলা চালিয়ে তার ব্যাবহৃত মোবাইল হ্যান্ডসেট ও ডিএসএলআর ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
রামগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে তাৎক্ষনিক পুলিশ পাঠানো হয়েছে। সাংবাদিকদের ক্যামেরা উদ্ধার সহ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Share Button