দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী। ফাইল ছবি

আয়কর ফাঁকির অভিযোগে করা মামলায় গতকার বুধবার আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে আদালতে হাজির করা হয়। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তাকে বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালত-১-এ আনা হয়। আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার আগে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ‘সবাইকে এক দিন মরতে হবে। মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে আর কত হয়রানি করা হবে?’ মাওলানা সাঈদীর আইনজীবী মুজাহিদুল ইসলাম জানান, আসামির কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী আইনজীবী ও পুলিশের উপস্থিতিতে এসব কথা বলেন।

আয়কর ফাঁকির অভিযোগে মাসুমা খাতুন নামে তত্কালীন সহকারী কর কমিশনার মাওলানা সাঈদীর বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন। আজ বাদী আদালতে প্রথমবারের মতো সাক্ষ্য প্রদান করেন। আংশিক জবানবন্দি নিয়ে পুরান ঢাকার বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩-এর ভারপ্রাপ্ত বিচারক মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের আদালত আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করে। আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুস সোবহান তরফদার ও মুহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম, রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম বাচ্চু। আয়কর ফাঁকির অভিযোগে মামলায় মাওলানা দেলোওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে গতকাল বুধবার সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়েছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ড হওয়ায় আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী এখন কারাগারে আছেন। ২০১১ সালে ২ কোটি ২৭ লাখ ৪০ হাজার টাকা আয় গোপন করে তার ওপর প্রযোজ্য কর ৫৬ লাখ ৪৬ হাজার টাকা কর ফাঁকির অভিযোগে এনবিআর তার বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করে। ২০১২ সালে মামলাটি মাওলানা সাঈদীর বিরুদ্ধে চার্জগঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত।

Share Button