ভেষজ গুণের কারি গাছ

সুগন্ধি মশলা হিসেবে সবুজ পাতা রান্নায় ব্যবহার করা যায়। পাতায় ৬.১%, প্রোটিন, ১.০% তেল, ১৬% শ্বেতসার, ৬.৪% আঁশ ও প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি (৪ মিলিগ্রাম/১০০ গ্রাম পাতা) আছে। কাঁচা কারিপাতা কয়েকটা পানিতে ধুয়ে রান্নার সময় তার ভেতরে ছিঁড়ে দিলে রান্নায় সুঘ্রাণ ও ঝাঁঝ আসে। গরু ও খাসির গোশত, মিশ্র সবজি, ডাল ইত্যাদি …বিস্তারিত

ঢাকায় হাত বাড়ালেই শীতে পিঠা

পুরান ঢাকার অলিগলিতে পিঠাওয়ালীদের তৈরি পিঠা ছিল আদি ঢাকার মানুষের সকালের নাশ্তার অংশ। এসব পিঠাওয়ালীর দেখা মিলত পুরান ঢাকার রাস্তায়। তাদের কাছে ভাপাপিঠা, দুধ চিতই, পুলিপিঠা, পাটিসাপটাসহ নানা ধরনের পিঠা থাকত। পাড়া-মহল্লাতে গুলগুলা নামের জনপ্রিয় পিঠাটি এখন খুব কম দেখা যায়, যা নাশ্তার সঙ্গে গরম গরম খাওয়া হতো। আদি ঢাকার মানুষের কাছে অনেক জনপ্রিয় পিঠা …বিস্তারিত

শীতের হাওয়া লাগল মনে

ছয়টি ঋতু যেন আমাদের জন্য আনন্দের উপলক্ষ। বর্ষায় যেমন আমরা মেতে উঠি বৃষ্টিবিলাসে, তেমনি হেমন্তে মাতোয়ারা হই নবান্নের উৎসবে। আর শীত? শীত নিয়ে আমাদের পরিকল্পনার অন্ত নেই। কারণ এসময় প্রকৃতির পরিবর্তনটা চোখে পড়ে সবচেয়ে বেশি। কুয়াশা, ভোরের শিশির, পাতা ঝরে যাওয়া, খেজুরের মিষ্টি রস, নানারকম পিঠাপুলি তো রয়েছেই; সবচেয়ে বেশি আয়োজন থাকে সম্ভবত আমাদের পোশাকের …বিস্তারিত

চলচ্চিত্র নেপথ্য কাহিনি :স্ট্যানলি কুব্রিকের ‘স্পার্টাকাস’

ষোল শতক থেকে ইউরোপে দাসপ্রথা বিলুপ্ত হতে শুরু করে। অনেক দেশে বিংশ শতক পর্যন্ত এই অমানবিক প্রথা টিকে ছিল। অথচ আজ থেকে দুই হাজার বছরেরও বেশি সময় আগে একজন দাসপ্রথার বিলুপ্তির স্বপ্ন দেখেছিলেন। রোমের সেই বিপ্লবী ‘দাস-নেতা’র নাম স্পার্টাকাস। স্পার্টাকাসের ছোটবেলা সম্পর্কে বেশি কিছু জানা যায়নি। সম্ভবত তিনি জাতিতে থ্রাসিয়ান ছিলেন। তবে এটা নিশ্চিত যে, …বিস্তারিত

টের পাইনি

সাঈদ সাহেদুল ইসলাম   অনেক অনেক শব্দ রে আজ জব্দ বানায় আমারে, বিসর্জনে—তাই জীবনের সুরের সা রে গা মা রে! এই ধরে নে হারামখোরের বেঁচে থাকা হারামে, ওর জ্বালাতে একটু যে আর যায় না থাকা আরামে। চরিত্রহীন-আঁঁতেল-গোঁয়ার-চেলা-বেকুব-খচ্চরে, করছে রে যা, তাতেই রেগে দেহ ফেটে চচ্চড়ে! অসভ্য-চোর-সন্ত্রাসী-ডন-মাফিয়া এবং চাঁদাবাজ, যা করেছে লাভ কী ওতে করবি কপাল …বিস্তারিত

ব্রেন গেম

অরণ্য একটা ব্যাঙ ধরে এনেছে। বাসার ট্রেতে আছে। ক্লাসে ঠিকমতো প্রাকটিকালটা করা হয়নি, বাসায় ভালোমতো কাটা-ছেঁড়া করে দেখতে হবে। বারান্দায় একটা টুলের ওপর ট্রে রেখে ব্যাঙটাকে অজ্ঞান করে পিন গাঁথতে শুরু করবে এমন সময় মায়ের গলা শুনতে পেল অরণ্য। খালি হাতেই ব্যাঙ কাটছ? এই বলে মা তার হাতে এক জোড়া গ্লাভস দিয়ে বললেন, পরে নাও। …বিস্তারিত

পৃথিবীর বিপজ্জনক উদ্ভিদ

গাছ মানুষের পরম বন্ধু হলেও কোনো কোনো গাছ বেঁচে থাকার জন্য ক্ষতিকর। ‘মানছিনেল’ এদের মধ্যে অন্যতম। ফ্লোরিডা, মেক্সিকো, ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জ ও দক্ষিণ আমেরিকায় এদের দেখা যায়। পৃথিবীর সবচেয়ে বিপজ্জনক গাছ হিসেবে এরা স্বীকৃত। সাধারণত সমুদ্র সৈকতের ম্যানগ্রোভ পরিবেশে জন্মে। উচ্চতা প্রায় ১৫ মিটার। পাতা সবুজ। ফল অনেকটা আপেলের মতো। ফোরবল নামক এক ধরনের বিষাক্ত পদার্থ …বিস্তারিত

চিরচেনা চড়ুই পাখি

বারান্দায় বাগান করা আমার পুরনো সখ। কিছুদিন আগে বশেমুরকৃবি ক্যাম্পাস থেকে সাদা আর সবুজ রঙের পাকা মরিচ এনে রোদে শুকিয়ে তা থেকে বীজ সংগ্রহ করে চারা করেছি। বড় হলে টবে লাগাব। গাছের পরিচর্যা করব নিজের হাতে। দুদিন পর গাছের মরিচও খাব। বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যস্ত থাকার কারণে সোম থেকে বৃহস্পতি দিনের বেলা চারাগুলোর পরিচর্যা করা সম্ভব হয় …বিস্তারিত

বিপন্নের তালিকায় প্রকৃতির প্রাণ

‘পাখি সব করে রব, রাতি পোহাইল। কাননে কুসুমকলি, সকলি ফুটিল॥…’ শহরের চার দেয়ালের মাঝে পাখির ডাকে ঘুম না ভাঙলেও গ্রামের এমন কোনো মানুষ নেই যাদের পাখির ডাকে ঘুম ভাঙে না। দৃষ্টিনন্দন রং আর সুমধুর কূজনে চারদিক মুখরিত করে পাখি এ গাছে ও গাছে নেচে বেড়ায়। কোনোটা কালো, কোনোটা সবুজ, কোনোটা ধূসর রঙের আবার কোনোটা কালচে …বিস্তারিত

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ-এর কবিতা

জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে মৃত্যুকে আর আমার কোনো ভয় নেই- যাকে আমি দেখেছি- একবার নয়, একাধিকবার খুব কাছে থেকে একেবারে একান্তভাবে- আলিঙ্গনরত প্রিয়তমার মতো। সৈনিক ছিলাম মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়তে শিখেছি তখন। বন্দিজীবনে পাণ্ড্র– রোগকে আজরাইল রূপে দেখেছি- আল্লাহতা’লার ভর্ৎসনায় ফিরে গেছে আমাকে না নিয়েই- তারপর ভেবেছিলাম- স্রষ্টার কিছু কাজ হয়তো এখনো বাকি রয়ে গেছে- সেটুকু …বিস্তারিত

সম্পাদক ও প্রকাশক:: মামুনুর রশিদ
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ আল ইসলাম কায়েদ

প্রকাশক কর্তৃক শামীম প্রিন্টিং প্রেস ২১৮, ফকিরেরপুল, মতিঝিল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১২৫ নিউ কাকরাইল রোড থেকে প্রকাশিত। সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: মামুন ম্যানসন(২য় তলা), ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, ঢাকা-১২০৩। মোবাইল : ০১৭৪৮-০৩৮২৮৬, ০১৭১৬ -৪২৫৮৪৬, E-mail: ssangjog119@gmail.com

ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট: ট্রাস্ট ফট বিডি