হাইকমিশনার বিক্রমকুমার দোরাইস্বামী। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশে করোনার ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে ভারত। এ বিষয়ে পুনরায় আশ্বস্ত করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রমকুমার দোরাইস্বামী।

করোনার টিকা উৎপাদনকারী ভারতীয় প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদার পুনাওয়ালার একটি টুইট নিজের অ্যাকাউন্টে শেয়ার দিয়েছেন তিনি। এর মধ্য দিয়ে সব ধরনের বিভ্রান্তির অবসান ঘটিয়েছেন ভারতীয় হাইকমিশনার।

যারা ভ্যাকসিন নিয়ে উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন, তাদের প্রতি আদার পুনাওয়ালার টুইটটি দেখার আহ্বান জানিয়েছেন বিক্রমকুমার দোরাইস্বামী। তিনি লিখেছেন, “ভ্যাকসিন নিয়ে যারা উদ্বিগ্ন, তারা এটি রফতানির বিষয়ে সেরামের সিইও’র বক্তব্য দেখুন।”

আদার পুনাওয়ালা টুইটারে নিজের ভেরিফায়েড অ্যাকাউন্টে পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করেছেন, ‘বাংলাদেশসহ সব দেশে ভ্যাকসিন রফতানির অনুমতি দিয়েছে ভারত। আমরা জানি, এ নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। তবে ভারত বায়োটেক সম্পর্কিত যেকোনও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে বিবৃতি দেওয়া হবে।’

ভারতীয় হাইকমিশনার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব, সেরাম ইনস্টিটিউট, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়ার টুইটার অ্যাকাউন্ট এবং তথ্য, যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলককে ট্যাগ করেছেন টুইটটি।

সেরাম ইনস্টিটিউট ইতোমধ্যে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে জানিয়েছে, ভারত থেকে ভ্যাকসিন রফতানিতে কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে বাংলাদেশ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৫০ লাখ ডোজ টিকা আগামী মাসের শুরুতে পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ হিসেবে পুরো তিন কোটি টিকার জন্য অগ্রিম হিসেবে এরইমধ্যে ৬০০ কোটি টাকা সেরামের অ্যাকাউন্টে রবিবার জমা দেওয়ার কথা জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার।