ছবি: সংগৃহীত।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রণালয়টির অতিরিক্ত সচিব মনোহর আগনানি জানান, টিকা দেওয়ার পর যে ৪৪৭ জনের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার দেখা দিয়েছে তাদের মাত্র তিন জনকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে।

ভারতে টিকাদান কর্মসূচিতে যেসব ডোজ ব্যবহৃত হচ্ছে, সবই ভারতে তৈরি হয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারীকে পরাজিত করার লড়াইয়ে আপাতত দুটি টিকাকে অনুমোদন দিয়েছে তারা। একটি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার বানানো ও ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত ‘কোভিশিল্ড’, অপরটি ভারত বায়োটেকের ‘কোভ্যাক্সিন’। ১৩০ কোটি মানুষের এ দেশের অন্তত ৩০ কোটি নাগরিককে আগামী ছয় থেকে আট মাসের মধ্যে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারত সরকার।