মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে রোহিঙ্গারা। ছবি: সংগৃহীত

মিয়ানমারের নতুন সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশের আনুষ্ঠানিক কোনো যোগাযোগ হয়নি বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

মঙ্গলবার তিনি বলেন, ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের সঙ্গে যে বৈঠক হওয়ার কথা ছিলো তা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ইস্যুতে ৪ ফেব্রুয়ারি যৌথ ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের ফলে তা অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকার আশা বাংলাদেশের

সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) মিয়ানমারের রাষ্ট্রপতি উইন মিন্ট ও ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী অং সান সু চিকে গ্রেফতার করে দেশটির সেনাবাহিনী। এরপর দেশটিতে এক বছরের জন্য জারি করা হয় জরুরি অবস্থা।

 ২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর নির্যাতন ও অভিযানের পর থেকে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয়।