ছবিঃ সংগৃহীত

মিয়ানমারের সামরিক সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক ধরপাকড় চালাচ্ছে দেশটির পুলিশ। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, তিন সপ্তাহ ধরে চলা আন্দোলনের এবারই বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি কঠোর হয়েছে।

মিয়ানমারের অন্তত তিনটি গণমাধ্যম জানিয়েছে, মনওয়া সিটিতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে এক নারী নিহত হয়েছেন। এখনো তার পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি।

দেশটির রাজধানী ইয়াঙ্গুনে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, সকাল থেকেই জলকামানসহ শহরজুড়ে অবস্থান নেয় পুলিশ। বেলা বাড়ার পর বিক্ষোভকারীরা জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। সংঘর্ষের সময় সাংবাদিকসহ অনেক বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়। আটককৃতদের সংখ্যা নিশ্চিত করা যায়নি।

এদিকে সামরিক জান্তা পুলিশের সহিংসতার বিষয়টি অস্বীকার করেছে। মিয়ানমারের সেনাপ্রধান জেনারেল মিন অং লাইং বলেছেন, বিক্ষোভ দমনে অতি সামান্য শক্তি প্রয়োগ করা হয়েছে। বিক্ষোভকারীদের হাতে এক পুলিশ সদস্য নিহত হওয়ার পর তারা কয়েকজনকে আটক করেছে।

এদিকে শনিবার জাতিসংঘে নিয়ুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত যেকোনো উপায়ে’ সামরিক সরকারকে হটানোর অনুরোধ জানিয়েছেন সবার কাছে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত কাও মু তুন জানিয়েছেন তিনি সামরিক সরকারের প্রতি অনুগত নন। এই দূত সু চি সরকারের পক্ষে দাঁড়িয়ে বলেছেন, মিয়ানমারের নাগরিকদের নিরাপত্তার জন্যে সামরিক সরকার হটাতে পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।

গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের নির্বাচিত এনএলডি সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে দেশটির সামরিক বাহিনী। অভ্যুত্থানের পর তারা গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনকে জালিয়াতি অভিহিত করে এনএলডির নেত্রী নোবেল শান্তি পুরষ্কার বিজয়ী অং সান সুচিকে গৃহবন্দী করে।