সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির (বার) কার্যনির্বাহী কমিটির (২০২১২০২২ সেশনের) নির্বাচনে সভাপতি পদে সাবেক আইনমন্ত্রী সিনিয়র অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু এবং সম্পাদক পদে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। আবদুল মতিন খসরু আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেল থেকে এবং রুহুল কুদ্দুস কাজল বিএনপিজামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেল থেকে নির্বাচিত হয়েছেন। শুক্রবার (১২ মার্চ) নির্বাচন পরিচালনা কমিটির অন্যতম সদস্য ব্যারিস্টার অনিক আর হক বাংলা ট্রিবিউনকে তথ্য নিশ্চিত করেছেন

এছাড়াও সবকটি পদে মিলিয়ে এবার নীল প্যানেল ছয়টি পদে (সম্পাদক, একজন সহসভাপতি, একটি সহসম্পাদক তিন জন সদস্য) এবং সাদা প্যানেল আটটি পদে (সভাপতি, একজন সহসভাপতি, একজন সহসম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ এবং চার জন সদস্য) জয় পেয়ে সংগরিষ্ঠতা পেয়েছে

সভাপতি পদে আবদুল মতিন খসরু দুই হাজার ৯৬৮টি ভোট পেয়ে সাদা প্যানেল (আওয়ামী লীগ সমর্থিত) থেকে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা প্যানেল (বিএনপিজামায়াত সমর্থিত) থেকে মো. ফজলুর রহমান পেয়েছেন দুই হাজার ১৩২ ভোট। এছাড়াও এবিএম ওয়ালিউর রহমান খান পেয়েছেন ১৮৬ ভোট, . ইউনুছ আলী আকন্দ পেয়েছেন ৮৩ ভোট এবং কেএম কবির পেয়েছেন ৩৬ ভোট

দুটি ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে নীল প্যানেল থেকে মো. জালাল উদ্দিন দুই হাজার ৭৪৭ ভোট এবং সাদা প্যানেল থেকে মুহাম্মদ শফিক উল্লাহ দুই হাজার ৬১১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়াও মো. ইসমাইল হোসেন ২২৬ ভোট, মোহাম্মদ আলী আজম দুই হাজার ৪৯০ ভোট, নজরুল ইসলাম ২২১ ভোট এবং জয়নুল আবেদীন তুহিন দুই হাজার ১৮৫ ভোট পেয়েছেন

সম্পাদক (সেক্রেটারি) পদে তিন হাজার ৯৫ ভোট পেয়ে নীল প্যানেল থেকে পুনরায় জয়লাভ করেছেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাদা প্যানেলের মো. আবদুল আলীম মিয়া জুয়েল দুই হাজার ২০৪ ভোট, মো. গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী ৩৮ ভোট এবং মীর্জা আল মাহমুদ ৯৭ ভোট পেয়েছেন

কোষাধ্যক্ষ পদে . মো. ইকবাল করিম দুই হাজার ৮৭৪ ভোট পেয়ে সাদা প্যানেল থেকে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. আবদুল আল মাহবুব নীল প্যানেল থেকে দুই হাজার ১৫১ ভোট, মো. বদিউজ্জামান তপাদার ২৫৫ ভোট এবং মো. নাসির উদ্দিন খান (সম্রাট) ১১৯ ভোট পেয়েছেন

দুটি সহসম্পাদক পদে নীল প্যানেল থেকে মাহমুদ হাসান দুই হাজার ৭২৪ ভোট পেয়ে এবং সাদা প্যানেল থেকে সাফায়াত সুলতানা রুমি দুই হাজার ৫১৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদের মধ্যে সাদা প্যানেল থেকে এবিএম নূরআলম উজ্জ্বল দুই হাজার ২৯০ ভোট, স্বতন্ত্রভাবে ফরহাদ উদ্দিন ভূঁইয়া ৪৮৮ ভোট, মো. সাজ্জাদ হোসেন তিন হাজার ১১১ ভোট, মোহাম্মাদ সুলতান মাহমুদ ১৪২ ভোট, নীল প্যানেল থেকে রশিদা আলীম ঐশী দুই হাজার ৯৬ ভোট এবং এসএম জুলফিকার আলী জুনু ৩৫৩টি ভোট পেয়েছেন

আর সাতটি সদস্য পদে সাদা প্যানেল থেকে মাহফুজুর রহমান রোমান দুই হাজার ৮২৯ ভোটে প্রথম এবং এবিএম শিবলী সাদেকিন দুই হাজার ৮০৭ ভোট পেয়ে দ্বিতীয়, নীল প্যানেল থেকে এসএম ইফতেখার উদ্দীন মাহমুদ দুই হাজার ৮০৫ ভোট পেয়ে তৃতীয় এবং পারভীন কাওসার মুন্নি দুই হাজার ৫৩৮ ভোট পেয়ে চতুর্থ, সাদা প্যানেল থেকে মিন্টু কুমার মন্ডল দুই হাজার ৫০৭ ভোট পেয়ে পঞ্চম, নীল প্যানেল থেকে রেদওয়ান আহমেদ রানজীব দুই হাজার ৪৩৯ ভোট পেয়ে ষষ্ঠ, এবং সাদা প্যানেল থেকে মুনতাসির উদ্দিন আহমেদ দুই হাজার ৪৩৭ ভোট পেয়ে সপ্তম সদস্য হিসেবে জয়যুক্ত হয়েছেন

এর আগে গত ১০ ১১ মার্চ দুই দিনব্যাপী নির্বাচনের ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়। এবারের নির্বাচনে মোট সাত হাজার ৭২২ জন ভোটারের মধ্যে দুই দিনে পাঁচ হাজার ৪৮৬ জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন

সমিতির একটি সভাপতি, দুটি সহসভাপতি, একটি সম্পাদক, একটি কোষাধ্যক্ষ, দুটি সহসম্পাদক সাতটি সদস্য পদে ভোট গ্রহণ করা হয়। নির্বাচন পরিচালনার জন্য গঠিত উপকমিটির আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সাবেক বিচারপতি এফ এম আবদুর রহমান। কার্যনির্বাহী কমিটির ১৪টি পদের বিপরীতে এবারের নির্বাচনে মোট প্রার্থী হয়েছিলেন ৫১ জন

প্রসঙ্গত, সমিতির ২০১৯২০ সেশনের নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন সরকার সমর্থক সাদা প্যানেলের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী (বর্তমানে অ্যাটর্নি জেনারেল) এএম আমিন উদ্দিন। অপরদিকে সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন বিএনপি সমর্থক নীল প্যানেলের ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন। ওই নির্বাচনে ১৪টি পদের মধ্যে সভাপতিসহ ছয়টি পদে সরকার সমর্থিত সাদা প্যানেল নির্বাচিত হয়। অপরদিকে সম্পাদকসহ আটটি পদে বিএনপিজামায়াত সমর্থিত নীল প্যানেল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে নির্বাচিত হয়

এরপর ২০২০২১ সেশনের নির্বাচনে সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট এএম আমিন উদ্দিন পুনরায় নির্বাচিত হন। অপরদিকে সম্পাদক পদে বিএনপিজামায়াত সমর্থিত প্রার্থী (নীল প্যানেল) ব্যারিস্টার মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল নির্বাচিত হন। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত আইনজীবীদের মধ্য সভাপতিসহ মোট ছয়টি পদে এবং সম্পাদক পদ মোট আটটি পদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে নির্বাচিত হন বিএনপিজামায়াত সমর্থিত আইনজীবীরা