সংবাদ সংযোগ ডেস্ক 

 

 মিয়ানমারে ক্ষমতাসীন জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলন থেকে অগণিত বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকশো বিক্ষোভকারীকে আজ বুধবার (২৪ মার্চ) কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে জানা যায়, বুধবার সকালে ইয়াঙ্গুনের কারাগার থেকে কয়েকটি বাসে করে কয়েকশো বিক্ষোভকারীকে বের করে নেওয়া হয়েছে। তবে ঠিক কতজনকে মুক্ত করা করা হয়েছে সে সম্পর্কে প্রশাসন থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

বিক্ষোভকারীদের মতে, গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে চলমান বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত ২ হাজারের অধিক মানুষকে আটক করেছে জান্তা বাহিনী। দেশটির সবচেয়ে বড় শহর ইয়াঙ্গুন থেকেই বেশি আটকের ঘটনা ঘটেছে। শহরের অধিকাংশ ব্যবভসায়িতক প্রতিষ্ঠান বন্ধ পড়ে আছে। রাস্তায় স্বল্প সংখ্যক গাড়ি ছাড়া আর কিছুই নেই। কেউ কোনো কাজ করছে না। সবকিছু যেন স্থবির হয়ে পড়ে আছে। এ যেন নীরব বিক্ষোভ।

ইয়াঙ্গুনের কিয়াউকতাডা জেলার এক শিক্ষক জানান, রাস্তাঘাট মরুভূমির মতো হয়ে আছে। কোনো মানুষ রাস্তায় নেই। শুধু ডেলিভারি ম্যান ছাড়া।

এদিকে, মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলের শহর মান্দলে বাবার কোলে বসে থাকা ৭ বছরের এক শিশুকে গুলি করে হত্যা করেছে জান্তা বাহিনী। গতকাল ২৩ মার্চ  হঠাৎ ছুটে আসা ঘাতক বুলেটের আঘাতে মুহূর্তেই লুটিয়ে পড়ে শিশুটি।

এক বিবৃতিতে সেভ দ্য চিলড্রেন জানায়, ৭ বছরের একজন মেয়ে শিশুকে এভাবে হত্যার ঘটনা ভয়াবহ। একদিন আগে মান্দলে শহরে ১৪ বছরের এক কিশোরকেও গুলি করে হত্যার খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে ওয়াচডগ গ্রুপ অ্যাসিস্টেন্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনারের (এএপিপি) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, জান্তা সরকারবিরোধী বিক্ষোভে সেনাদের গুলিতে এখন পর্যন্ত মিয়ানমারে নিহত হয়েছেন ২৬১ জন। যার মধ্যে অন্তত ২০ জন শিশু বলে জানিয়েছে সেভ দ্য চিলড্রেন। তবে যদিও জান্তা সরকার দাবি করছে, নিহতের সংখ্যা ১৬৪।