ছবিঃ সংগৃহীত

তেহরিক-ই-লাব্বাইকের (টিএলপি) কর্মীদের বিক্ষোভ দমনে পুলিশ হিমশিম খাওয়ায় পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে আধা-সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। প্রদেশের রাজধানী লাহোরে বিক্ষোভকারীদের হাতে অন্তত দুইজন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন, আহতের সংখ্যা ১২৫। বুধবার (১৪ এপ্রিল) এসব তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত সোমবার চরমপন্থী ইসলামিক দল টিএলপি নেতা সাদ হুসাইন রিজভীকে আটকের পর থেকেই বিক্ষোভ করছে দলটির কর্মীরা। লাহোরের পুলিশ প্রধান গোলাম মেহমুদ দোগার এক হাসপাতালে আহত পুলিশ সদস্যদের দেখতে গিয়ে বলেন, বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত দুই পুলিশ কর্মকর্তা মারা গেছেন, এছাড়া আহত হয়েছেন আরো ১২৫ জন।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) রিজভীর বিরুদ্ধে একজন পুলিশ কনস্টেবলকে হত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, বিক্ষোভকারীরা তাকে অপহরণ করেছিল এবং পরে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল।

টিএলপি গত বছরের শেষ দিকে রাজধানীর একটি প্রধান সড়ক অবরোধ করে এবং ফরাসি পণ্য বর্জনের অনুমোদন দেওয়ার বিষয়ে সরকার তাদের সাথে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে। চুক্তির পর তাদের প্রতিবাদ বন্ধ হয়।

সেই সময়ে এক শিক্ষকের হত্যার বিষয়ে ফ্রান্সের প্রতিক্রিয়া নিয়ে বেশ কয়েকটি মুসলিম দেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছিল। তিনি মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর কার্টুন ছাত্রদের দেখিয়েছিলেন।

 চুক্তিটি এই বছরের শুরুতে সংশোধিত হয়েছিল। এখানে ফরাসী রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের জন্য সংসদীয় প্রস্তাবের সময়সীমা ২০ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। এইসময়ে এই টিএলপি দেশব্যাপী সমাবেশ করার পরিকল্পনা করেছিল।