প্রাকৃতিক পরিবেশ বিপর্যয়ের পাশাপাশি আমাদের রাজনৈতিক পরিবেশও ক্রমশ বিষাক্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

শনিবার ( জুন) আওয়ামী লীগের বন পরিবেশ উপকমিটি আয়োজিত ওয়েবিনারে তিনি কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘প্রাকৃতিক পরিবেশ বিপর্যয়ের পাশাপাশি রাজনৈতিক পরিবেশও বিষাক্ত হচ্ছে। সহিংসতা সাম্প্রযায়িক উপাদান যুক্ত হচ্ছে। রাজনৈতিক পরিবেশ স্থিতিশীল না থাকলে পরিবেশ রক্ষাসহ নানা কাজই করা সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, ‘১৪০ দেশের সমীক্ষায় অবাসযোগ্য শহরের তালিকায় ঢাকা ছিল এক নম্বরে। এখন সেটি নম্বরে। তারপরও ঢাকা বাসযোগ্য নয়। বায়ুদূষণ, শব্দদূষণ চরম পর্যায়ে। আমাদের সেটি থেকে উত্তরণে কাজ করতে হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সভাসেমিনারে সমাধান করলে হবে না। বাস্তবভিত্তিক কাজ করতে হবে। যেটি প্রধানমন্ত্রী বলে থাকেন। তিনি আজ বৃক্ষরোপন করে এই দিবসের উদ্বোধন করেছেন। শেখ হাসিনা সরকার আগামী বছরে দেশের ২২ থেকে ২৪ ভাগ অঞ্চল গাছপালায় আচ্ছাদিত করার পরিকল্পনা করেছে।

তিনি বলেন, ‘সমগ্র দেশের ৮৮টি ছোটো নদী, ৩৫২টি খাল পুনঃখননে চেষ্টা চলছে। দখলকৃত খাল পুনরুদ্ধারের কাজ চলছে। ইকু সিস্টেম পুনরুদ্ধারের সব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। জলবায়ুর প্রভাব অভিযোজনের মাধ্যমে নিরসনের জন্য নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

পরিবেশ মানুষের মধ্যে রয়েছে নিবিড় যোগসূত্র। নানা কারণে পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণে মানব সভ্যতা হুমকির সম্মুখিন।’ – যোগ করে ওবায়দুল কাদের

অধ্যাপক . খন্দকার বজলুল হকের সভাপতিত্বে এতে আরও অংশ নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপউপাচার্য . নাসরিন আহমেদ, অধ্যাপক আইনুন নিশাত, স্থপতি ইকবাল হাবিব, ডিবিসি নিউজের সম্পাদক প্রণব সাহা, আওয়ামী লীগের বন পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অস্ট্রেলিয়া থেকে গবেষক আশরাফ দেওয়ান